Pre-loader logo

অন্যরকম মিলনমেলায় তারকা নেতার ঢল

অন্যরকম মিলনমেলায় তারকা নেতার ঢল

আনন্দ-উৎসবের পরিবর্তে নেপালে বিমান ট্র্যাজেডিতে নিহতদের স্মরণে বিশেষ মোনাজাতের মাধ্যমে নবম বছরের যাত্রা শুরু করল দেশের সর্বাধিক প্রচারিত দৈনিক বাংলাদেশ প্রতিদিন। গতকাল প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর দিনে শুরুতেই এক মিনিট নীরবতা পালন করা হয় নিহতদের স্মরণে। বাংলাদেশ প্রতিদিন পরিবারের সদস্যরা ধারণ করেছিলেন ‘কালো ব্যাজ’। ইন্টারন্যাশনাল কনভেনশন সিটি বসুন্ধরার গুলনকশা হলে দুপুর ১২টায় অন্যভাবে কর্মসূচির সূচনা করেন ইস্ট ওয়েস্ট মিডিয়া ও বসুন্ধরা গ্রুপের ব্যবস্থাপনা পরিচালক সায়েম সোবহান। শোকাহত পরিবেশে বিশেষ মোনাজাতে অংশ নেন তথ্যমন্ত্রী ও জাসদ সভাপতি হাসানুল হক ইনু ও বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান চৌধুরী কামাল ইবনে ইউসুফসহ আগত অতিথিরা। সঙ্গে ছিলেন বাংলাদেশ প্রতিদিন সম্পাদক নঈম নিজাম। এরপরই বিশাল হলে সবাই দাঁড়িয়ে এক মিনিট নীরবতা পালন করেন। অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন বাংলাদেশ প্রতিদিনের বিশেষ প্রতিনিধি শাবান মাহমুদ। এর আগে সকাল থেকেই ইন্টারন্যাশনাল কনভেনশন সিটি বসুন্ধরায় শুভানুধ্যায়ীদের ঢল নামে। বর্ণিল সাজে সাজানো হয় ইন্টারন্যাশনাল কনভেনশন সিটির পাশাপাশি ইস্ট ওয়েস্ট মিডিয়া প্রাঙ্গণ। আলোকসজ্জা ছিল গোটা মিডিয়া প্রাঙ্গণ। বাংলাদেশ প্রতিদিন কার্যালয় ছিল রংবেরঙের ব্যানার-ফেস্টুন আর ফুলের ডালিতে ভরপুর। চট্টগ্রামের ঐতিহ্যবাহী সুস্বাদু মেজবানি খাবারে আপ্যায়ন করা হয় আগত অতিথিদের। নেপালে বিমান ট্র্যাজেডির কারণে সংগীতানুষ্ঠান হয়নি, যদিও সাংস্কৃতিক অঙ্গনের তারকাদের ঢল ছিল বাংলাদেশ প্রতিদিনকে শুভেচ্ছা জানাতে। দশ হাজারেরও বেশি অতিথির আনাগোনায় সরগরম ছিল বাংলাদেশ প্রতিদিনের অনুষ্ঠান প্রাঙ্গণ। সন্ধ্যার পর থেকে মধ্যরাত পর্যন্ত অতিথিরা বাংলাদেশ প্রতিদিন কার্যালয়ে আসেন ফুলের ডালি নিয়ে। ভালোবাসায় সিক্ত করেন বাংলাদেশ প্রতিদিন পরিবারকে। বাংলাদেশ প্রতিদিনের উত্তরোত্তর সাফল্য কামনা করেন আগতরা। ঘড়ির কাঁটায় সকাল ১০টা বাজতেই বাংলাদেশ প্রতিদিনকে শুভেচ্ছা জানাতে ছুটে আসেন সাবেক রাষ্ট্রপতি ও জাতীয় পার্টি চেয়ারম্যান হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ, কো-চেয়ারম্যান জিএম কাদের, মহাসচিব রুহুল আমিন হাওলাদারসহ দলের একঝাঁক নেতা। এরপরই আসেন সাবেক সেনাপ্রধান ও মুক্তিযুদ্ধের অন্যতম সেক্টর কমান্ডার কেএম সফিউল্লাহ বীরউত্তম, কর্নেল (অব.) জাফর ইমাম বীরবিক্রম ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক উপাচার্য একে আজাদ চৌধুরী। পর্যায়ক্রমে ফুলের তোড়া হাতে নিয়ে আসেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের, কৃষিমন্ত্রী মতিয়া চৌধুরী, গণপূর্তমন্ত্রী ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ হোসেন, প্রধানমন্ত্রীর রাজনৈতিক উপদেষ্টা এইচ টি ইমাম, মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি ক্যাপ্টেন এবি তাজুল ইসলাম, আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট জাহাঙ্গীর কবীর নানক, পরিবেশ ও বন উপমন্ত্রী আবদুল্লাহ আল জ্যাকব প্রমুখ। বিভিন্ন সময়ে ফুলেল শুভেচ্ছা জানাতে আসেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য লে. জেনারেল (অব.) মাহবুবুর রহমান, নজরুল ইসলাম খান, ভাইস চেয়ারম্যান ব্যারিস্টার শাহজাহান ওমর বীরবিক্রম, আবদুল আউয়াল মিন্টু, অ্যাডভোকেট নিতাই রায় চৌধুরীসহ বিএনপি ও অঙ্গ সংগঠনের শীর্ষ নেতারা। সাবেক রাষ্ট্রপতি ও বিকল্পধারা বাংলাদেশের সভাপতি অধ্যাপক ডা. একিউএম বদরুদ্দোজা চৌধুরীও এসেছিলেন ফুলের তোড়া হাতে। লিবারেল ডেমোক্রেটিক পার্টি এলডিপি চেয়ারম্যান কর্নেল (অব.) ড. অলি আহমদ ও বাংলাদেশ কল্যাণ পার্টির চেয়ারম্যান মেজর জেনারেল (অব.) সৈয়দ মুহাম্মদ ইবরাহিম বীরপ্রতীককেও দেখা যায় প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উদযাপন অনুষ্ঠানে। ফুলের ডালি সাজিয়ে নিয়ে অনুষ্ঠানে আসেন সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগের অবসরপ্রাপ্ত
বিচারপতি এএইচএম শামসুদ্দিন চৌধুরী মানিক, গণমাধ্যম ব্যক্তিত্ব সমকাল সম্পাদক গোলাম সারওয়ার ও সাবেক রাষ্ট্রদূত ড. এ কে আবদুল মোমেন। বাংলাদেশ প্রতিদিন কার্যালয়ে এসে শুভ কামনা জানান জাতীয় সংসদের ডেপুটি স্পিকার ফজলে রাব্বি মিয়া। এ ছাড়াও রাজনৈতিক-সামাজিক সংগঠন, শিল্প ও সাংস্কৃতিক অঙ্গনের তারকা ব্যক্তিত্বসহ বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার প্রতিনিধি। বাংলাদেশ প্রতিদিনের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীতে নিরন্তন শুভ কামনা জানাতে প্রতি বছরের মতো এবারও ছুটে এসেছিলেন ইস্ট ওয়েস্ট মিডিয়া গ্রুপসহ বিভিন্ন গণমাধ্যমের প্রতিনিধিসহ হকার-এজেন্ট অ্যাসোসিয়েশনের প্রতিনিধিরাও। এ সময় আরও উপস্থিত ছিলেন ইস্ট ওয়েস্ট মিডিয়া গ্রুপের প্রকাশক ময়নাল হোসেন চৌধুরী, মিডিয়া গ্রুপের উপদেষ্টা আবু তৈয়ব, কালের কণ্ঠ সম্পাদক ইমদাদুল হক মিলন, নির্বাহী সম্পাদক মোস্তফা কামাল, ডেইলি সান সম্পাদক এনামুল হক চৌধুরী, নির্বাহী সম্পাদক শিয়াবুর রহমান, নিউজ টোয়েন্টিফোরের নির্বাহী পরিচালক হাসনাইন খুরশীদ, প্রধান বার্তা সম্পাদক শাহনাজ মুন্নী, বাংলাদেশ প্রতিদিনের যুগ্ম সম্পাদক আবু তাহের, উপ-সম্পাদক মাহমুদ হাসান, বাণিজ্য উপদেষ্টা খন্দকার কামরুল হক শামীম, প্রধান বার্তা সম্পাদক মাশুক চৌধুরী, বার্তা সম্পাদক কামাল মাহমুদ, লুত্ফর রহমান হিমেল, প্রধান প্রতিবেদক মনজুরুল ইসলাম, নগর সম্পাদক শিমুল মাহমুদ, জাহাঙ্গীর আলম, বিজ্ঞাপন বিভাগের জিএম মাসুদুর রহমান, সার্কুলেশন বিভাগের জিএম বিল্লাল হোসেন মন্টুসহ বাংলাদেশ প্রতিদিন পরিবাবের সব সদস্য। ২০১০ সালের এই দিনে দেশের সর্বাধিক প্রচারিত এ দৈনিকটির যাত্রা শুরু হয় বসুন্ধরা গ্রুপের পৃষ্ঠপোষকতায়। অন্যান্য বছর আনন্দঘন আনুষ্ঠানিকতায় বাংলাদেশ প্রতিদিনের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উদযাপিত হলেও এবার নেপালে বিমান ট্র্যাজেডির ঘটনায় সব আনন্দ কর্মসূচি বাতিল করা হয়। রাষ্ট্রীয় শোকের সঙ্গে একাত্মতা প্রকাশ করে গতকাল সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান বাদ দিয়ে বিশেষ দোয়া মাহফিলের আয়োজন করা হয়েছে। একইসঙ্গে সারা দেশের জেলা-উপজেলা পর্যায়ে প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে কেক কাটা, র‌্যালিসহ সব আয়োজন বাতিল করে আজ শুক্রবার এসব কর্মসূচি পালনের সিদ্ধান্ত হয়।
আওয়ামী লীগ : প্রধানমন্ত্রীর সাবেক স্বাস্থ্য উপদেষ্টা সৈয়দ মোদাচ্ছের আলী, আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক এনামুল হক শামীম, দফতর সম্পাদক ও প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ সহকারী ড. আবদুস সোবহান গোলাপ, প্রচার সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ, মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক সম্পাদক অ্যাডভোকেট মৃণাল কান্তি দাস, সাংস্কৃতিক সম্পাদক অসীম কুমার উকিল, তথ্য ও গবেষণা সম্পাদক অ্যাডভোকেট আফজাল হোসেন, ডাকসুর সাবেক ভিপি সুলতান মোহাম্মদ মনসুর আহমেদ, সংসদ সদস্য নাইমুর রহমান দুর্জয়, আওয়ামী লীগের উপ-দফরত সম্পাদক ব্যারিস্টার বিপ্লব বড়ুয়া, কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য এসএম কামাল হোসেন, অ্যাডভোকেট রিয়াজুল কবির কাওছার, ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক ইসহাক আলী খান পান্না, ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি লিয়াকত শিকদার, এইচএম বদিউজ্জামান সোহাগ, ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শাহে আলম মুরাদ, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক কামাল চৌধুরী, প্রচার সম্পাদক আকতার হোসেন, দফতর সম্পাদক গোলাম রাব্বানী বাবলু, যুব মহিলা লীগের সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপিকা অপু উকিল, সহসভাপতি কোহেলী কুদ্দুস মুক্তি, ঢাকা মহানগর দক্ষিণ যুবলীগের সভাপতি ইসমাইল চৌধুরী সম্রাট, যুবলীগ উত্তরের সভাপতি মাইনুল হোসেন খান নিখিল, ঢাকা মহানগর উত্তর যুব মহিলা লীগের সভাপতি সাবিনা আকতার তুহিন এমপি, কুয়েত আওয়ামী লীগের সভাপতি কাজী মোহাম্মদ শহীদ পাপুল, সাবেক ছাত্রনেতা গোলাম সরোয়ার কবির, আবু আব্বাস ভুইয়া, ছাত্রলীগের সভাপতি মো. সাইফুর রহমান সোহাগ, সহসভাপতি কাজী এনায়েত, আল আমিন, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক শাহিদুল ইসলাম শাহেদ, সাংগঠনিক সম্পাদক শেখ জসিম উদ্দিন, আন্তর্জাতিক সম্পাদক ইমরান খান, দফতর সম্পাদক দেলোয়ার হোসেন শাহাজাদা, জগন্নাথ ছাত্রলীগের সভাপতি তরিকুল ইসলাম, সাধারণ সম্পাদক শেখ জয়নুল আবেদীন রাসেল, খোকসা পৌর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মিজানু রহমান বিটু, মেঘনার আওয়ামী লীগ নেত্রী সেলিনা ইসলাম, ছাত্রলীগের সাবেক নেতা আমিরুল ইসলাম আমির, খন্দকার তারেক রায়হানও এসেছিলেন প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীতে। জাতীয় মুক্তিযোদ্ধা সমন্বয় কমিটি মহাসচিব আওয়ামী লীগ নেতা সফিকুল বাহার মজুমদারের নেতৃত্বে অনুষ্ঠানে ’৭১-এর রণাঙ্গনের মুক্তিযোদ্ধারা বাংলাদেশ প্রতিদিন সম্পাদক নঈম নিজামের হাতে মুক্তিযোদ্ধাদের পতাকা হস্তান্তর করেন। এ সময় সংগঠনের হারুনুর রশিদ, আবদুল হাই, মোশাররফ হোসেন, আনোয়ার হোসেন পাহাড়ী বীরপ্রতীক, যুদ্ধাহত মুক্তিযোদ্ধা মোহাম্মদ রফিক, মাহমুদ পারভেজ জুয়েল, বসির চৌধুরী, কমান্ডার মোশাররফ হোসেনসহ কেন্দ্রীয় নেতারা উপস্থিত ছিলেন। এ ছাড়াও জাতীয় সংসদের স্পিকার ড. শিরিন শারমীন চৌধুরীর পক্ষে ফুলের তোড়া নিয়ে আসেন সংসদের উপ-পরিচালক (গণসংযোগ) নূরুল হুদা।
বিএনপি : দলের স্থায়ী কমিটির সদস্য লেফটেন্যান্ট জেনারেল (অব.) মাহবুবুর রহমান, নজরুল ইসলাম খান, ভাইস চেয়ারম্যান চৌধুরী কামাল ইবনে ইউসুফ, ইনাম আহমেদ চৌধুরী, ব্যারিস্টার শাহজাহান ওমর, ইকবাল হাসান মাহমুদ টুকু, আবদুল আউয়াল মিন্টু, অ্যাডভোকেট নিতাই রায় চৌধুরী, ডা. এজেডএম জাহিদ হোসেন, বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা আবদুস সালাম, অ্যাডভোকেট ফজলুর রহমান, গাজী মাজহারুল আনোয়ার, আতাউর রহমান ঢালী, শাহাজাদা মিয়া, যুগ্মমহাসচিব অ্যাডভোকেট মজিবর রহমান সরোয়ার, খায়রুল কবির খোকন, সাবেক এমপি ও বিএনপি নেতা মেজর (অব.) আখতারুজ্জামান, সাংগঠনিক সম্পাদক ফজলুল হক মিলন, সৈয়দ এমরান সালেহ প্রিন্স, ডা. সাখাওয়াত হোসেন জীবন, স্বনির্ভরবিষয়ক সম্পাদক শিরিন সুলতানা, স্বেচ্ছাসেবকবিষয়ক সম্পাদক মীর সরাফত আলী সপু, সমাজকল্যাণবিষয়ক সম্পাদক কামরুজ্জামান রতন, সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক আবদুস সালাম আজাদ, শহীদুল ইসলাম বাবুল, সহআন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক ব্যারিস্টার রুমিন ফারহানা, সহসাংস্কৃতিক বিষয়ক সম্পাদক মনির হোসেন, কেন্দ্রীয় নেতা মীর নেওয়াজ আলী নেওয়াজ, কাদের গনি চৌধুরী, আমিনুল হক, আমিরুজ্জামান খান শিমুল, রিয়াজউদ্দিন নসু, সাঈদ সোহরাব, আবদুল মতিন, হায়দার আলী লেনিন, সাবেক এমপি শাম্মি আখতার, অধ্যাপক আমিনুল ইসলাম, অ্যাডভোকেট রফিক শিকদার, বিএনপি চেয়ারপারসনের মিডিয়া উইংয়ের সদস্য শায়রুল কবির খান, শামসুদ্দিন দিদার, বিএনপি চেয়ারপারসনের গুলশান কার্যালয়ের কর্মকর্তা প্রকৌশলী জসিম উদ্দিন প্রমুখ আসেন শুভেচ্ছা জানাতে। এ ছাড়াও জাতীয়তাবাদী যুবদলের সাংগঠনিক সম্পাদক মামুন হাসান, কেন্দ্রীয় নেতা গিয়াসউদ্দিন মামুন, মহানগর নেতা আজহারুল ইসলাম সেলিম, জাহাঙ্গীর মোল্লা, শফিকুল ইসলাম শাহীন, শওকত হোসেন ভূঁইয়া, শরিফুল ইসলাম মিলন, জাহাঙ্গীর আলম, স্বেচ্ছাসেবক দলের কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক আবদুল কাদের ভূঁইয়া জুয়েল, সহসভাপতি গোলাম সারোয়ার, ফখরুল ইসলাম রবিন, কাজী রেজওয়ান হোসেন রিয়াজ, মহিলা দলের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক হেলেন জেরিন খান, কেন্দ্রীয় নেত্রী ফরিদা ইয়াসমিন, জাসাস সহসভাপতি ও অভিনেত্রী শায়লা, ছাত্রদলের কেন্দ্রীয় সহসভাপতি নাজমুল হাসান, শাহ আলম, কেন্দ্রীয় নেতা দবিরুল ইসলাম তুষার, মুজাহিদুল ইসলাম জাহিদ প্রমুখকে দেখা যায় প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীতে।
জাতীয় পার্টি : জাতীয় পার্টির পক্ষ থেকে আসেন দলের প্রেসিডিয়াম সদস্য জিয়াউদ্দিন আহমেদ বাবলু, অ্যাডভোকেট কাজী ফিরোজ রশীদ, এস এম ফয়সল চিশতী, সুনীল শুভ রায়, মীর আবদুস সবুর আসুদ, হাজী সাইফুদ্দিন আহমেদ মিলন, এ টি ইউ তাজ রহমান, মেজর (অব.) খালেদ আখতার, অধ্যাপিকা মাসুদা এম রশীদ চৌধুরী, এইচ এম এরশাদের উপদেষ্টা কাজী মামুনুর রশীদ, নাজমা আক্তার, জাতীয় পার্টির ঢাকা দক্ষিণের সভাপতি জহিরুল আলম রুবেল, জাতীয় যুব সংহতির সভাপতি আলমগীর শিকদার লোটন, কেন্দ্রীয় নেতা ইসহাক ভূইয়া, শাহ আলম তালুকদার, জামাল রানা, খোরশেদ আলম খুশু, গাজী সালাম, হাসনা হেনা, তাসলিমা আকবর রুনা, প্রিয়াংকা নূর, জাতীয় ছাত্র সমাজের সাবেক কেন্দ্রীয় নেতা জাহিদ বিপ্লব প্রমুখ।
ইসলামী দল : ওলামা মাশায়েখ তৌহিদি জনতা সংহতি পরিষদের চেয়ারম্যান আল্লামা ফরিদ উদ্দীন মাসঊদ, ইসলামী ঐক্যজোটের মহাসচিব মুফতি ফয়জুল্লাহ, ভাইস চেয়ারম্যান মাওলানা হাসানাত আমিনী, কেন্দ্রীয় নেতা মাওলানা আলতাফ হোসাইন। বাংলাদেশ সম্মিলিত ইসলামী জোটের চেয়ারম্যান হাফেজ মাওলানা জিয়াউল হাসান। বাংলাদেশ ইসলামী ঐক্যজোটের চেয়ারম্যান মিছবাহুর রহমান চৌধুরী। ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের যুগ্ম মহাসচিব এ টি এম হেমায়েত উদ্দীন, ঢাকা মহানগর দক্ষিণের সভাপতি মাওলানা ইমতিয়াজ আলম, উত্তরের সভাপতি ফজলে বারী মাসউদ, শিল্প ও বাণিজ্যবিষয়ক সম্পাদক আলহাজ আবদুর রহমান, কেন্দ্রীয় নেতা আনিসুর রহমান, আবু সাঈদ, মুহাম্মদ উল্লাহ, আবদুল আহাদ, জাহাঙ্গীর আলম।
অন্যান্য দল : বাংলাদেশ জাতীয় পার্টির (বিজেপি) চেয়ারম্যান ব্যারিস্টার আন্দালিব রহমান পার্থ, বাংলাদেশ ন্যাশনাল অ্যালায়েন্স (বিএনএ) চেয়ারম্যান ও সাবেক মন্ত্রী ব্যারিস্টার নাজমুল হুদা, গণফোরামের সাধারণ সম্পাদক মোস্তফা মোহসীন মন্টু, এলডিপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব শাহাদাত হোসেন সেলিম, জাতীয় পার্টির (কাজী জাফর) মহাসচিব মোস্তফা জামাল হায়দার, প্রেসিডিয়াম সদস্য আহসান হাবিব লিংকন, কেন্দ্রীয় নেতা আবু তালেব দেওয়ান, লোকমান পাটোয়ারী, কাজী কায়েস আহমেদ ও গোলাম মোস্তফা, বাংলাদেশ লেবার পার্টির চেয়ারম্যান ডা. মোস্তাফিজুর রহমান ইরান, কাজী ফয়েজ আহমেদ ও রুবেল খান, গণদলের চেয়ারম্যান এ টি এম গোলাম মাওলা চৌধুরী, মহাসচিব আবু সৈয়দ, কেন্দ্রীয় নেতা নূরুল কাদের চৌধুরী, জহিরুল ইসলাম ও কাজী রঞ্জন, আওয়ার ইসলাম সম্পাদক হুমায়ুন আউয়ুব, জাতীয় পার্টির (জেপি) মহাসচিব ও সাবেক শিক্ষামন্ত্রী শেখ শহীদুল ইসলাম, জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল বাংলাদেশ জাসদের সভাপতি শরীফ নূরুল আম্বিয়া, বাসদ আহ্বায়ক রেজাউর রশীদ খান, খেলাফত মজলিসের যুগ্ম সম্পাদক মাওলানা জালাল উদ্দীন আহমেদ, অফিস সম্পাদক আজিজুর রহমান হেলাল, ঢাকা মহানগর সভাপতি এনামুল হক মুছা, সাম্যবাদী দলের সাধারণ সম্পাদক সাইদ আহমেদ, ডেমোক্রেটিক লীগের সাধারণ সম্পাদক সাইফুদ্দিন মনি প্রমুখ শুভেচ্ছা জানান।
আইন পেশায় নিযুক্ত অতিথিবৃন্দ : বঙ্গবন্ধু আইনজীবী পরিষদের সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট লায়েকুজ্জামান মোল্লা, বগুড়া-৭ আসনের এমপি অ্যাডভোকেট মহম্মদ আলতাফ আলী, হিউম্যান রাইটস অ্যান্ড পিস ফর বাংলাদেশের প্রেসিডেন্ট অ্যাডভোকেট মনজিল মোরসেদ, আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনালের প্রসিকিউটর ব্যারিস্টার তুরিন আফরোজ, সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী ব্যারিস্টার জিএম সাইফুর রহমান, গাজী মো. গিয়াস উদ্দিন মিলন, উম্মে কুলসুম রেখা, আইন ও অধিকার ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট সৈয়দ মহিদুল কবির প্রমুখ এসেছিলেন শুভেচ্ছা জানাতে।
শিক্ষাঙ্গনের যারা এসেছিলেন : বাংলাদেশ প্রতিদিনের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে ফুল দিয়ে শুভেচ্ছা জানান জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. মীজানুর রহমান, ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের উপ-উপাচার্য অধ্যাপক ড. শাহিনুর রহমান, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের টেলিভিশন, ফিল্ম ও ফটোগ্রাফি বিভাগের অধ্যাপক এ জে এম শফিউল আলম ভূঁইয়া, ক্রিমিনোলজি বিভাগের অধ্যাপক জিয়া রহমান, ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় ইংরেজি বিভাগের অধ্যাপক সালমা সুলতানা জনপ্রিয় এ দৈনিকের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে শুভেচ্ছা জানান। শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের শিক্ষা প্রকৌশল অধিদফতরের প্রধান প্রকৌশলী দেওয়ান মোহাম্মদ হানজালা, জাতীয় শিক্ষাক্রম ও পাঠ্যপুস্তক বোর্ডের সদস্য অধ্যাপক ড. রতন সিদ্দিকী, মাদ্রাসা শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যান অধ্যাপক এ কে এম ছায়েফ উল্লাসহ অন্যরা আসেন শুভেচ্ছা জানাতে। জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর অধ্যাপক ড. নূর মোহাম্মদ, মনোবিজ্ঞান বিভাগের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ড. অশোক কুমার সাহা, বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রধান প্রকৌশলী সুকুমার চন্দ্র সাহা ও সহকারী প্রক্টর মোস্তফা কামাল প্রমুখ। বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের মধ্যে নর্দান বিশ্ববিদ্যালয়ের ট্রাস্টি বোর্ডের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ড. আবু ইউসুফ মো. আবদুল্লাহ, উপাচার্য অধ্যাপক ড. আনোয়ার হোসেন, উপ-উপাচার্য অধ্যাপক ড. আনোয়ারুল করিম, কোষাধ্যক্ষ মো. আনোয়ার হোসেন ফুল দিয়ে শুভেচ্ছা জানান। সাউথ ইস্ট বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. এ এন এম মেশকাত উদ্দীন, পরিচালক (ব্রান্ডিং) মুহাম্মদ ইমতিয়াজ ফুলেল শুভেচ্ছা জানান। ইউনাইটেড ইন্টারন্যাশনাল বিশ্ববিদ্যালয়ের উপ-পরিচালক (পিআর) আবু সাদাত মো. মুস্তানসির বিল্লাহ ছাড়াও মো. সাদিকুর রহমান দিপু, ফাহাদ হোসেন শুভেচ্ছা জানান ফুল দিয়ে। বিএসবি-ক্যামব্রিয়ান এডুকেশন গ্রুপের চেয়ারম্যান লায়ন এম কে বাশারসহ অন্যরা ফুলেল শুভেচ্ছা জানান। বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশনের অতিরিক্ত পরিচালক (জনসংযোগ) মো. ওমর ফারুক, শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের পরিদর্শন ও নিরীক্ষা অধিদফতরের যুগ্ম-পরিচালক বিপুল চন্দ্র সরকার, উপ-পরিচালক রাশেদুজ্জামান, সৈয়দ জাফর আলী, শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের বেসরকারি শিক্ষক-কর্মচারী কল্যাণ ট্রাস্টের সদস্য সচিব ও স্বাধীনতা শিক্ষক পরিষদের সাধারণ সম্পাদক অধ্যক্ষ মো. শাহজাহান আলম সাজু, স্বাশিপ নেতা সায়েদুর রহমান পান্না, অধ্যক্ষ তেলাওয়াত হোসেন ফুলেল শুভেচ্ছা জানান। অভিভাবক ঐক্য ফোরামের সভাপতি জিয়াউল কবির দুলু, সাধারণ সম্পাদক সেলিম উদ্দিন, মহিলা সম্পাদিকা শ্যামলী সিমু শুভেচ্ছা জানান ফুল দিয়ে। পাঞ্জেরী পাবলিকেশন্সের পক্ষে অ্যাসিসট্যান্ট ম্যানেজার একরামুল হক, ঊর্ধ্বতন প্রশাসনিক কর্মকর্তা শফিকুল ইসলাম আসেন প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে ফুল দিতে। নাগরিক ছাত্রঐক্যের আহ্বায়ক নাজমুল হাসান, ময়মনসিংহের ভালুকা ‘বন্ধু প্রতিদিন’ আহ্বায়ক আসাদুজ্জামান সুমন ফুল দিয়ে বাংলাদেশ প্রতিদিনকে শুভেচ্ছা জানান।
মিলন মেলায় শামিল অর্থনীতিবিদ ও ব্যবসায়ীরা : বাংলাদেশ প্রতিদিনের নবম বর্ষে পদার্পণ অনুষ্ঠান দেশের শীর্ষ ব্যবসায়ী-শিল্পপতিদের মিলন মেলায় পরিণত হয়। মিলন মেলায় শামিল হয়েছেন— অর্থনীতিবিদ ড. রাশেদ আল মাহমুদ তিতুমীর, বাংলাদেশ শিল্প ও বণিক সমিতি ফেডারেশন-এফবিসিসিআইর সাবেক সভাপতি মীর নাসির হোসেন, আবদুল মাতলুব আহমাদ, এফবিসিসিআই সভাপতি শফিউল ইসলাম মহিউদ্দিন, বাংলাদেশ পোশাক প্রস্তুত ও রপ্তানিকারক সমিতি-বিজিএমইএর সাবেক সভাপতি আনোয়ার উল আলম চৌধুরী পারভেজ, আবদুস সালাম মুর্শেদী, আতিকুল ইসলাম, বিজিএমইএ ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মহিউদ্দিন আহমেদ মিন্টু, বারভিডা ও সিআইএস চেম্বারের সভাপতি হাবিব উল্লাহ ডন, সহ-সভাপতি লোকমান হোসেন আকাশ, এফবিসিসিআই পরিচালক হেলেনা জাহাঙ্গীর, শফিকুল ইসলাম ভরশা, সংগঠনটির সাবেক পরিচালক আনোয়ার হোসেন, ঢাকা চেম্বারের সাবেক সহ-সভাপতি এম এস সেকিল চৌধুরী, নাসিব সভাপতি নূরুল গণি শোভন, বাংলাদেশ-চায়না চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রিজের সহ-সভাপতি ইশাকুল হোসেন সুইট, অ্যামটবের মহাসচিব টি আই এম নূরুল কবির, সেঞ্চুরি গ্রুপের চেয়ারম্যান এম জি আর নাসির মজুমদার, সেমস গ্লোবালের চেয়ারম্যান মেহেরুন এন ইসলাম, ব্যবসায়ী নেতা এম এস সিদ্দিকী, আক্কাস মাহমুদ, সাবেরা আহমেদ কলি, এ কে এম খোরশেদ আলম, আলাউদ্দিন মালিক, ব্যবসায়ী আফিস আল আসাদ, ব্যারিস্টার মোহাম্মদ সায়েম আলাদ্দিন মালিক প্রমুখ। ইসলামী ব্যাংকের পিআরডি ডিভিশনের কর্মকর্তা রেজাউল করিম, আয়ারল্যান্ড বাংলাদেশ চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রির পরিচালক নাজিনূর রাহিমও শুভেচ্ছা জানিয়েছেন।
গণমাধ্যম ব্যক্তিত্ব : বাংলাদেশ প্রতিদিনের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীতে ফুলেল শুভেচ্ছা জানিয়েছেন বাসসের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও প্রধান সম্পাদক আবুল কালাম আজাদ, সিনিয়র সাংবাদিক মাহফুজ উল্লাহ, যুগান্তর সম্পাদক (ভারপ্রাপ্ত) সাইফুল আলম, প্রধানমন্ত্রীর প্রেস উইংয়ের পক্ষে প্রধানমন্ত্রীর উপ-প্রেসসচিব আশরাফুল আলম খোকন, বিএফইউজে (একাংশ) সভাপতি মনজুরুল আহসান বুলবুল, মহাসচিব ওমর ফারুক, বিএফইউজে (একাংশ) সভাপতি রুহুল আমিন গাজী, মহাসচিব এম আবদুল্লাহ, ডিইউজে (একাংশ) সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর আলম প্রধান, ডিইউজে (একাংশ) সভাপতি আবু জাফর সূর্য, সাধারণ সম্পাদক সোহেল হায়দার চৌধুরী, ডিআরইউ সভাপতি সাইফুল ইসলাম, পূর্বপশ্চিমটোয়েন্টিফোর ডটকম প্রধান সম্পাদক পীর হাবিবুর রহমান, ঢাকা টাইমস টোয়েন্টিফোর ডটকমের সম্পাদক আরিফুর রহমান দোলন, ক্র্যাব সাধারণ সম্পাদক সারোয়ার আলম, রেডিও ক্যাপিটালের মেহদি মালেক, গাজী টিভির সৈয়দ ইশতিয়াক রেজা, বৈশাখী টেলিভিশনের এমডি টিপু আলম মিলন, হেড অব নিউজ অশোক চৌধুরী, এসএ টিভির শাহনেওয়াজ দুলাল, ইনডিপেনডেন্ট টিভির মামুন আবদুল্লাহ ও আশিষ সৈকত, চ্যানেল টোয়েন্টিফোর টিভির রাহুল রাহা, এশিয়ান টিভির হাবিবুর রহমান পলাশ, টিভি উপস্থাপক হাসান আহমেদ চৌধুরী কিরণ, ডা. আবদুন নূর তুষার, খন্দকার ইসমাঈল, আনজাম মাসুদ, সাংবাদিক নেতা মোস্তফা হোসেন চৌধুরী, নূরুল আমিন রোকন, মোদাব্বের হোসেন, শফিউল আলম দোলন, ওবায়দুর রহমান শাহীন, শহীদুল ইসলাম, ড. মেহেদী মাসুদ, আবু ইউসুফ, আসাদুজ্জামান আসাদ, জাহিদ রনি, সেলিনা শিউলি প্রমুখ।
চিকিৎসকবৃন্দ : বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ডা. কামরুল হাসান খান, উপ-উপাচার্য ও গণতন্ত্রী পার্টির প্রেসিডিয়াম সদস্য অধ্যাপক ডা. শহিদুল্লাহ সিকদার, কোষাধ্যক্ষ ডা. মো. আলী আসগর মোড়ল, অধ্যাপক ডা. ইকবাল হাসান মাহমুদ, অধ্যাপক ডা. এ কে মোস্তফা হোসেন, প্যাশেন্ট ওয়েলফেয়ার ফাউন্ডেশনের সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক ডা. রাকিবুল ইসলাম লিটু, অধ্যাপক ডা. মণিলাল আইচ লিটু, ডা. সাগুফা ইয়াসমিন, ডা. এম শমসের আলী, ডা. ইয়াসিন আলী, ডা. এম এ মলি, ডা. তানিয়া আলম প্রমুখ এসেছিলেন শুভেচ্ছা জানাতে। এ ছাড়া অ্যাপোলো হসপিটালসের পক্ষ থেকে শুভেচ্ছা জানান বিজনেস ডেভেলপমেন্টের ডিজিএম আখতার জামিল আহমেদ।
আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী : ঢাকা মহানগর পুলিশ (ডিএমপি) কমিশনার মো. আছাদুজ্জামান মিয়া, স্পেশাল ব্রাঞ্চ (এসবি) প্রধান মীর শহীদুল ইসলাম, ডিআইজি মাহবুব হোসেন, পুলিশ সদর দফতরের এআইজি (মিডিয়া) সহেলী ফেরদৌস, জনসংযোগ কর্মকর্তা এ কে এম কামরুল আহছান, ডিসি (গুলশান) মোস্তাক আহমেদ খান, ডিসি (মিডিয়া) মো. মাসুদুর রহমান, ডিসি (ট্রাফিক-উত্তর) প্রবীর কুমার রায়, ডিসি (উত্তরা) নাবিদ কামাল শৈবাল, এডিসি (ট্রাফিক-উত্তর) রহিমা আক্তার লাকী, এডিসি (গুলশান) আবদুল আহাদ, এডিসি (ওয়ারী) নূরুল আমিন, এডিসি (ক্যান্টনমেন্ট) মোহাম্মদ সাহেদ মিয়া, এসি (মিডিয়া) সুমনকান্তি চৌধুরী, এসি (ট্রাফিক-উত্তর) আবদুল্লাহ আল মামুন, খিলক্ষেত থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শহীদুল হক। র‌্যাবের ভারপ্রাপ্ত মহাপরিচালক কর্নেল আনোয়ার লতিফ খান, লিগ্যাল অ্যান্ড মিডিয়া উইংয়ের পরিচালক কমান্ডার মুফতি মাহমুদ খান, উপ-পরিচালক (লিগ্যাল অ্যান্ড মিডিয়া উইং) মেজর হুসাইন রইসুল আজম মনি, বাংলাদেশ কোস্টগার্ডের গোয়েন্দা শাখার আবুল কালাম আজাদ, শাহ আলম, আবদুস সালাম, বিজিবির জনসংযোগ কর্মকর্তা মোহসিন রেজা।
ক্রীড়াবিদ ও সংগঠন : বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশন বাফুফের সিনিয়র সহ-সভাপতি আবদুস সালাম মুর্শেদী, শেখ জামাল ধানমন্ডি ক্লাবের গভর্নিং বডির চেয়ারম্যান মনজুর কাদের, বিসিবি পরিচালক নজিব আহমেদ, জাতীয় ফুটবল দলের সাবেক অধিনায়ক বিপ্লব ভট্টাচার্য, জাতীয় দলের সাবেক ফুটবলার আবদুল গফফার, রোকনুজ্জামান কাঞ্চন, জাতীয় মহিলা কুস্তি চ্যাম্পিয়ন শিরিন সুলতানা, জাতীয় মহিলা ফুটবল দলের সাবেক খেলোয়াড় ও কোচ রেহানা পারভীন, যুব গেমসে উশুতে সোনাজয়ী রাজিয়া সুলতানা প্রমুখ।
বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান ও সংগঠন : পেট্রোবাংলার চেয়ারম্যান আবুল মনসুর মো. ফয়জুল্লাহ এনডিসি শুভেচ্ছা জানাতে এসেছিলেন বাংলাদেশ প্রতিদিন কার্যালয়ে। ইস্টার্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. নূরুল ইসলাম, প্রাইম বিশ্ববিদ্যালয়ের অ্যাসিসট্যান্ট রেজিস্ট্রার মো. সেলিম উদ্দিন, জনসংযোগ কর্মকর্তা মো. রাকিব হাসান, এশিয়া প্যাসিফিক বিশ্ববিদ্যালয়ের জনসংযোগ কর্মকর্তা মো. বাচ্চু শেখ রবিন ফুল দিয়ে শুভেচ্ছা জানান।এ ছাড়া নির্বাচন কমিশন ও ভোটার তালিকা প্রকল্পের পক্ষে ফুলেল শুভেচ্ছা জানিয়েছেন কর্মকর্তারা। ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের পক্ষ থেকে শুভেচ্ছা জানান জনসংযোগ কর্মকর্তা এ এস এম মামুন। পোস্ট গ্রাজুয়েট ডক্টরস অ্যাসোসিয়েশনের পক্ষ থেকেও শুভেচ্ছা জানানো হয়। ফুলেল শুভেচ্ছা জানান, আবদুল মোমেন লিমিটেডের গ্রুপ বিজনেস ডেভেলপমেন্ট কর্মকর্তা জোবায়ের মাহমুদ, ম্যানেজার বিজনেস অ্যাফেয়ার্স রিয়াজ আহমেদ, ইউনিট্রেন্ড লিমিটেডের মিডিয়া ম্যানেজার মো. আকতার হোসেন, মিডিয়া ম্যানেজার (প্লানিং) মো. সেলিম খান, এ্যানেক্স কমিউনিকেশনের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মো. আজাদ হোসেন, এক্সিকিউটিভ মার্কেটিং মো. শাফায়েত হোসেন সজীব, আলোক হেলথ্ কেয়ারের ম্যানেজার (একাউন্টস) মো. রুস্তম আলী, মিডিয়া ম্যানেজার মো. দেলোয়ার হোসেন।
সার্কুলেশন সংশ্লিষ্ট সংস্থা ও সংগঠন : ঢাকা সংবাদপত্র হকার্স বহুমুখী সমবায় সমিতি লিমিটেডের সভাপতি মোস্তফা কামাল, সাধারণ সম্পাদক মোসলেম উদ্দীন, সার্কুলেশন ম্যানেজার আবুল কালামের নেতৃত্বে সমিতির কর্মকর্তা ও সুপারভাইজাররা ফুল দিয়ে শুভেচ্ছা জানান। সংবাদপত্র হকার্স কল্যাণ বহুমুখী সমবায় সমিতি লিমিটেডের প্রধান উপদেষ্টা সারওয়ার হোসেন, সভাপতি নজরুল ইসলাম, সাধারণ সম্পাদক জালাল আহমেদ জেহাদী, সার্কুলেশন ম্যানেজার জাহাঙ্গীর হোসেনের নেতৃত্বে কর্মকর্তা ও সুপারভাইজাররা ফুল দিয়ে শুভেচ্ছা জানান। বাংলাদেশ সংবাদপত্র এজেন্ট অ্যাসোসিয়েশন সভাপতি হারুন অর রশীদ, সাধারণ সম্পাদক আবু বক্কর, সাংগঠনিক সম্পাদক মোহাম্মদ আলীসহ কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দ ও বিভিন্ন জেলার এজেন্টরা ফুল দিয়ে শুভেচ্ছা জানান। বাংলাদেশ সংবাদপত্র পরিবহন মালিক সমিতির সভাপতি আকতার হোসেন রিন্টু ও সাধারণ সম্পাদক আবদুস সালাম ফুল দিয়ে শুভেচ্ছা জানান। বাংলাদেশ নিউজ পেপার সার্কুলেশন ম্যানেজারস অ্যাসোসিয়েশন উপদেষ্টা এ বি এম জাকারিয়া ও বিভিন্ন জাতীয় দৈনিকে সার্কুলেশন বিভাগের প্রধানরা ফুলেল শুভেচ্ছা জানান।

Copyright © 2020 Sayem Sobhan Anvir. All Rights Reserved.