Pre-loader logo

এশিয়ার দ্বিতীয় বৃহত্তম এলপি গ্যাস প্লান্ট করছে বসুন্ধরা

এশিয়ার দ্বিতীয় বৃহত্তম এলপি গ্যাস প্লান্ট করছে বসুন্ধরা

দেশে বোতলজাত গ্যাসের ক্রমবর্ধমান চাহিদা বিবেচনা করে ঢাকায় এশিয়ার দ্বিতীয় বৃহত্তম এলপি গ্যাস প্লান্ট স্থাপন করছে বসুন্ধরা গ্রুপ। দ্রুত সময়ের মধ্যেই এটি চালু হবে। এর ফলে আগামী এক-দেড় মাসের মধ্যে বাজারে সিলিন্ডারের সংকটও থাকবে না। সিলেটে বসুন্ধরা এলপি গ্যাসের এক অনুষ্ঠানে বসুন্ধরা গ্রুপের ভাইস চেয়ারম্যান সাফিয়াত সোবহান সানভীর এ কথা বলেছেন।
গতকাল শনিবার দুপুরে নগরের রোজভিউ হোটেলে বসুন্ধরা এলপি গ্যাসের পরিবেশকদের নিয়ে এই মতবিনিময় সভার আয়োজন করা হয়। সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে তিনি উপস্থিত ছিলেন। প্রত্যন্ত অঞ্চলে বসুন্ধরা এলপি গ্যাসের বাজার পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণের অংশ হিসেবে এই মতবিনিময় সভার আয়োজন করা হয়। এতে সিলেট অঞ্চলসহ আশপাশের পরিবেশকরা অংশ নেন।
কেক কাটার মধ্য দিয়ে উৎসবমুখর পরিবেশে শুরু হয় সভার আনুষ্ঠানিকতা। সভায় বিশেষ অতিথি ছিলেন বসুন্ধরা এলপি গ্যাসের হেড অব ডিভিশন (মার্কেটিং) এম এম জসীম উদ্দীন, হেড অব ডিভিশন (অ্যাকাউন্টস অ্যান্ড ফাইন্যান্স) মাহাবুব আলম, হেড অব ডিভিশন (সেলস) মীর টি আই ফারুক রিজভী, ডিজিএম (অপারেশন অ্যান্ড প্ল্যানিং) জাকারিয়া জালাল, সেক্রেটারি টু ভাইস চেয়ারম্যান মো. শরীফুল ইসলাম।
অনুষ্ঠানে বৃহত্তর সিলেট অঞ্চলে বসুন্ধরা গ্যাসের পরিবেশকরা নিজেদের অভিজ্ঞতা ও বিভিন্ন দাবিদাওয়ার কথা তুলে ধরেন।
বসুন্ধরা গ্রুপের ভাইস চেয়ারম্যান সাফিয়াত সোবহান সানভীর তাঁদের কথা মনোযোগ দিয়ে শোনেন। পরে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি বলেন, বর্তমানে আমাদের যে উত্পাদন ক্ষমতা আছে তা বাড়ানো হচ্ছে। সরবরাহ কম থাকায় নয় বরং চাহিদা বেড়ে যাওয়ার কারণে বোতলজাত গ্যাসের সংকট তৈরি হয়েছে। মাসখানেকের মধ্যে এর সমাধান হয়ে যাবে। ঢাকার প্লান্টটি খুব দ্রুত চালু হচ্ছে জানিয়ে তিনি বলেন, ‘এটি চালু হলে আপনাদের আর মোংলা থেকে পণ্য আনতে হবে না। ঢাকা থেকে দ্রুত সময়ের মধ্যে বোতলজাত গ্যাস আপনাদের কাছে পৌঁছে যাবে।’
এ সময় তিনি প্রত্যন্ত অঞ্চলে বসুন্ধরা এলপি গ্যাসের সহজপ্রাপ্তি নিশ্চিত করার ওপর জোর দেওয়ার জন্য পরিবেশকদের তাগাদা দেন। তিনি বলেন, ‘বসুন্ধরা এলপি গ্যাস নিরাপদ রাখতে ল্যাবরেটরিতে পরীক্ষার পর বাজারজাত করা হয়। এতে দুর্ঘটনার কোনো আশঙ্কা থাকে না। যে কারণে পরিবেশক ও গ্রাহকবান্ধব গ্যাস হিসেবে আলাদা পরিচিতি রয়েছে বসুন্ধরা এলপি গ্যাসের।’
অনুষ্ঠানে সুনামগঞ্জ জেলার ছাতক উপজেলার পরিবেশক আবুল ইঞ্জিনিয়ারিংয়ের স্বত্বাধিকারী আবুল হোসেন আজাদ বসুন্ধরা এলপি গ্যাসের প্রশংসা করে বলেন, আমি দেড় দশকেরও অধিককাল ধরে বসুন্ধরা গ্যাস পরিবেশনের সঙ্গে জড়িত। অন্যদের তুলনায় মূল্য একটু বেশি থাকার পরও সুনামের কারণে বসুন্ধরা গ্যাসের চাহিদা আছে। কিন্তু চাহিদা অনুযায়ী পণ্য সরবরাহ সব সময় করা হয় না। এটি বাড়াতে হবে।

Copyright © 2020 Sayem Sobhan Anvir. All Rights Reserved.