Pre-loader logo

কম্বাইন্ড পাওয়ার স্টেশনে ব্যবহৃত হবে বসুন্ধরা সিমেন্ট

কম্বাইন্ড পাওয়ার স্টেশনে ব্যবহৃত হবে বসুন্ধরা সিমেন্ট

নারায়ণগঞ্জের মেঘনা ঘাটে ৫৮৯ দশমিক ৭৫০ মেগাওয়াট (গ্যাস) এবং ৫৪১ দশমিক ২২০ মেগাওয়াট (ফুয়েল) বিদ্যুৎ উৎপাদন ক্ষমতাসম্পন্ন কম্বাইন্ড সাইকেল পাওয়ার স্টেশন নির্মাণে ব্যবহার করা হবে বসুন্ধরা সিমেন্ট। গতকাল মঙ্গলবার রাজধানীর বসুন্ধরা আবাসিক এলাকায় অবস্থিত বসুন্ধরা ইন্ডাস্ট্রিয়াল হেডকোয়ার্টার-১-এ এ বিষয়ে একটি চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়েছে। বসুন্ধরা ইন্ডাস্ট্রিয়াল কমপ্লেক্স লিমিটেডের পক্ষে চুক্তিতে সই করেন বসুন্ধরা গ্রুপের ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) সায়েম সোবহান আনভীর। আর নির্মাণ সংস্থা চায়না এনার্জি ইঞ্জিনিয়ারিং গ্রুপ নর্থইস্ট নম্বর ১ ইলেকট্রিক পাওয়ার কনস্ট্রাকশন লিমিটেডের (এনইপিসি) পক্ষে প্রজেক্ট ম্যাটেরিয়াল পারচেজিং ম্যানেজার সি জিং চুক্তিতে সই করেন।
চুক্তি স্বাক্ষর অনুষ্ঠানে বসুন্ধরা গ্রুপের সিনিয়র ডিএমডি মো. বেলায়েত হোসেন, ডিএমডি মাহবুব উজ জামান, উপদেষ্টা (ট্রেজারার) ময়নাল হোসেন চৌধুরী, উপদেষ্টা মেজর জেনারেল (অব.) মাহবুব হায়দার, মোহাম্মদ আবু তৈয়ব, চিফ ফাইন্যান্স অফিসার মো. তোফায়েল হোসেন, চিফ মার্কেটিং অফিসার (সিমেন্ট সেক্টর) খন্দকার কিংশুক হোসেন, জেনারেল ম্যানেজার (সেলস) ইঞ্জিনিয়ার মো. মাহমুদুল হাসানসহ অন্য ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।
জানা গেছে, দেশের সর্ববৃহৎ ও সর্বাধুনিক (ভিআরএম) প্রযুক্তির বসুন্ধরা সিমেন্টের কারখানা পরিদর্শন, উৎপাদনক্ষমতা, সরবরাহ ব্যবস্থা ও সর্বোপরি গুণগতমানের নিশ্চয়তা যাচাই করে এই প্রকল্পে বসুন্ধরা সিমেন্ট ব্যবহারের সিদ্ধান্ত নেয় চীনা প্রতিষ্ঠানটি। এ প্রকল্পে ৪৫ হাজার মেট্রিক টনের বেশি সিমেন্ট ব্যবহৃত হবে। এর আগে পদ্মা সেতুর মূল অংশ, পদ্মা সেতুর নদীশাসন, মেট্রো রেল, ফার্স্ট ঢাকা এলিভেটেড এক্সপ্রেসওয়ে, রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎকেন্দ্র, মাতারবাড়ী তাপবিদ্যুৎ কেন্দ্র, পায়রা সেতু, রূপসা রেল সেতু, রামপাল বিদ্যুৎকেন্দ্রসহ দেশের অন্যান্য বৃহৎ স্থাপনায় দেশীয় ব্র্যান্ড হিসেবে ব্যবহৃত হচ্ছে বসুন্ধরা সিমেন্ট।

Copyright © 2021 Sayem Sobhan Anvir. All Rights Reserved.