Pre-loader logo

গাজীপুর-বিমানবন্দর ফ্লাইওভার হবে বসুন্ধরা সিমেন্টে

গাজীপুর-বিমানবন্দর ফ্লাইওভার হবে বসুন্ধরা সিমেন্টে

ঢাকার উত্তরা হাউস বিল্ডিং থেকে গাজীপুরের টঙ্গীর চেরাগ আলী পর্যন্ত প্রায় সাড়ে চার কিলোমিটার দীর্ঘ ছয় লেনের ‘বিআরটি গাজীপুর-এয়ারপোর্ট’ ফ্লাইওভার প্রকল্পে সিমেন্ট সরবরাহ করবে দেশের সেরা সিমেন্ট উৎপাদক প্রতিষ্ঠান বসুন্ধরা সিমেন্ট। এ লক্ষ্যে গতকাল প্রকল্পটির নির্মাণকাজের দায়িত্বে থাকা জিয়াংসু প্রভিনশিয়াল ট্রান্সপোর্টেশন ইঞ্জিনিয়ারিং গ্রুপ কো. লিমিটেডের সঙ্গে একটি চুক্তি করেছে প্রতিষ্ঠানটি। রাজধানীর লা মেরিডিয়ান হোটেলে ওই চুক্তি স্বাক্ষর অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। অনুষ্ঠানে বসুন্ধরা গ্রুপের উপব্যবস্থাপনা পরিচালক (ডিএমডি) প্রকৌশলী এ কে এম মাহ্বুব-উজ-জামান এবং জিয়াংসু প্রভিনশিয়াল ট্রান্সপোর্টেশন ইঞ্জিনিয়ারিং গ্রুপ কো. লিমিটেডের প্রকল্প প্রতিনিধি জি লি নিজ নিজ প্রতিষ্ঠানের পক্ষে চুক্তিতে স্বাক্ষর করেন।
অনুষ্ঠানে জানানো হয়, বসুন্ধরা সিমেন্ট বর্তমানে অত্যাধুনিক (ভিআরএম) প্রযুক্তির মাধ্যমে বছরে ৫০ লাখ টনের বেশি সিমেন্ট উৎপাদন করছে। দেশের মেগা স্থাপনাগুলোতে এই প্রতিষ্ঠানটির সিমেন্ট ব্যবহৃত হচ্ছে। সেই ধারাবাহিকতায় এবং সর্বোপরি গুণগতমানের নিশ্চয়তা যাচাই সাপেক্ষে বসুন্ধরা সিমেন্টকে বিআরটি গাজীপুর-এয়ারপোর্ট ফ্লাইওভার প্রকল্পে সিমেন্ট সরবরাহের দায়িত্ব দিয়েছে জিয়াংসু ইঞ্জিনিয়ারিং। এই প্রকল্পে এক লাখ টনের বেশি সিমেন্ট সরবরাহ করবে বসুন্ধরা সিমেন্ট। চুক্তি স্বাক্ষর অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন জিয়াংসু প্রভিনশিয়াল ট্রান্সপোর্টেশন ইঞ্জিনিয়ারিং গ্রুপ কো. লিমিটেডের সহকারী প্রকল্প প্রতিনিধি লিউ হেইবেই, প্রকল্প পরিচালক সান টাইপিং, নির্মাণসামগ্রী ও উপকরণ ব্যবস্থাপক সু জিয়ানপিং, গুণমান ব্যবস্থাপক হামিদুল হক, বসুন্ধরা গ্রুপের সিনিয়র ডিএমডি বেলায়েত হোসেন, উপদেষ্টা আবু তৈয়ব, কালের কণ্ঠ সম্পাদক ইমদাদুল হক মিলন, চিফ ফিনান্সিয়াল অফিসার তোফায়েল হোসেন, চিফ মার্কেটিং অফিসার খন্দকার কিংশুক হোসেন, উপমহাব্যবস্থাপক সরোজ কুমার বড়ুয়া ও মো. মাহমুদুল হাসান, সহকারী মহাব্যবস্থাপক আশিকুর রহমান, ব্যবস্থাপক কুদরত ই এলাহী, জিয়াউল হক ফারহান ও সাইফুল ইসলাম রুবেলসহ উভয় প্রতিষ্ঠানের বিভিন্ন পর্যায়ের কর্মকর্তারা। বসুন্ধরা সিমেন্টের চিফ মার্কেটিং অফিসার খন্দকার কিংশুক হোসেন বলেন, ‘বাংলাদেশের বাজারে বসুন্ধরা সিমেন্ট এক নম্বর ব্র্যান্ড হিসেবে প্রতিষ্ঠিত। আমরা বিআরটির এই প্রকল্পে সিমেন্ট সরবরাহের সুযোগ পেলাম। আশা করছি এ প্রকল্পেও আমরা সফলভাবে সিমেন্ট সরবরাহ করতে পারব।’ অনুষ্ঠানে চুক্তি স্বাক্ষরের বিষয়ে জি লি বলেন, ‘এমন একটি গুরুত্বপূর্ণ প্রকল্পে বসুন্ধরা গ্রুপকে সঙ্গে পেয়ে আমরা খুবই খুশি এবং একই সঙ্গে নিজেদের খুব সৌভাগ্যবানও মনে করছি। কেননা ঢাকার এই প্রকল্পটি খুবই গুরুত্বপূর্ণ একটি প্রকল্প। সে কারণেই আমরা বসুন্ধরাকে বেছে নিয়েছি। তারাও আমাদের সঙ্গে যুক্ত হওয়ায় তাদের ধন্যবাদ জানাই।’ গাজীপুর-বিমানবন্দর রুটে বিশেষ পরিবহন ব্যবস্থা বাস র‌্যাপিড ট্রানজিট (বিআরটি) তৈরি হলে ঘণ্টায় ৪০ হাজার যাত্রী পরিবহন করতে পারবে। এই রুটে যাত্রীরা চলাচলের জন্য পাবে প্রতি মিনিটে একটি করে ১৪০ সিটের বাস। উভয় দিকে চলাচলের জন্য থাকছে ১২০টি বাস। ঢাকা মহানগরীর সঙ্গে গাজীপুর সিটি করপোরেশনের মানুষের যাতায়াত নির্বিঘ্ন, দ্রুত ও আরামদায়ক করার লক্ষ্যে এ প্রকল্প হাতে নেয় বিআরটি।

Copyright © 2020 Sayem Sobhan Anvir. All Rights Reserved.