Pre-loader logo

চ্যাম্পিয়ন রংপুর

চ্যাম্পিয়ন রংপুর

টি-২০ ক্রিকেটকে যদি একটি রাজ্যের সঙ্গে তুলনা করা হয়, তবে সেই রাজ্যের প্রতাপশালী সম্রাট অবশ্যই ক্রিস গেইল! টি-২০-তে তার সামনে দাঁড়ানোর সামর্থ্য কারও নেই। কাল সাকিবরাও পারলেন না। গেইলের ব্যাটের আগুনে পুড়ে ছারখার হয়ে গেল বিশ্বসেরা অলরাউন্ডারের ঢাকা ডায়নামাইটস। স্বপ্নের ফাইনালে জিতে বিপিএলের প্রথম শিরোপা ঘরে তুলল রংপুর রাইডার্স। অধিনায়ক হিসেবে চতুর্থবারের মতো দলকে চ্যাম্পিয়ন করে ইতিহাসের পাতায় সোনার হরফে নিজের নাম লিখে রাখলেন মাশরাফি বিন মর্তুজা। গতকাল ক্রিস গেইল একাই তছনছ করে দিলেন ঢাকা ডায়নামাইটসকে। খেললেন ৬৯ বলে ১৪৬ রানের এক স্বপ্নিল ইনিংস। ক্যাবিরীয় ঝড়কে সঙ্গ দিয়ে ব্রেন্ডন ম্যাককালামও খেললেন ৫১ রানের হার না মানা ইনিংস। দুই মহাতারকার অপরাজিত ২০১ রানের জুটিতেই ২০৬ রানের বিশাল স্কোর গড়ে রংপুর রাইডার্স। তারপর নিয়ন্ত্রিত বোলিং করে ঢাকা ডায়নামাইটসকে ১৪৯ রানে আটকে দেন মাশরাফিরা। ৫৭ রানের স্বপ্নিল এক জয়। গেইল টি-২০-তে বিশে বিশ! অর্থাৎ এখন তার সেঞ্চুরি সংখ্যা ২০টি। বিপিএলে এটি গেইলের পঞ্চম সেঞ্চুরি। কাল টি-২০-এর প্রথম ব্যাটসম্যান হিসেবে ১১ হাজার রানের মাইলফলক স্পর্শ করেছেন গেইল। নিজেই ঘোষণা দিয়েছেন, টি-২০-তে তিনিই সর্বকালের সেরা। এক দিন আগেই এলিমিনেটরে খুলনা টাইটানসের বিরুদ্ধে খেলেছেন ১২৬ রানের এক জাদুকরী ইনিংস, সেটিও গতকাল ইনিংসটির মতো এত সুন্দর ছিল না। একে একে কাল হাঁকিয়েছেন ১৮টি ছক্কা। প্রথম ব্যাটসম্যান হিসেবে কাল বিপিএলে শততম ছক্কার মাইলফলকও ছুঁয়েছেন। গেইলের প্রশংসায় পঞ্চমুখ হয়ে মাশরাফি বলেন, ‘গেইলই আমাদের প্রধান তারকা। আমি জানতাম গেইলের দিনে তাকে আটকাবে এমন সামর্থ্য কারও নেই। ওর বিরুদ্ধে প্রতিপক্ষের সাত-আট জন ব্যাটসম্যানও কিছু নয়। টি-২০-তে গেইলের ধারেকাছেও কেউ নেই।’ বিপিএলের পঞ্চম আসরে চতুর্থ শিরোপা জয় মাশরাফির। এমন পারফরম্যান্সে অভিভূত রাইডার্স ক্যাপ্টেন, ‘আমি যখন রংপুর রাইডার্সের সঙ্গে চুক্তিতে স্বাক্ষর করি, ম্যানেজমেন্ট আমাকে টার্গেট দিয়েছিলেন সেমিফাইনাল (শেষ চার) খেলার। এই আসরে চতুর্থ দল হিসেবে আমরা প্লে-অফে উঠি। তারপর আর কোনো চাপ ছিল না। তারপর দলের সবাইকে স্বাধীনতা দিয়েছি, যে যার মতো খেলবে। সে কারণেই সাফল্য পেয়েছি। আসলে আমাদের ভাগ্য ভালো ছিল। ভাগ্য সহায় না থাকলে তো আর এমন টুর্নামেন্ট জেতা যায় না।’ কালকের দিনে সবচেয়ে হতভাগা মানুষটির নাম বোধহয় সাকিব আল হাসান। ভাগ্যকেই দুষলেন ডায়নামাইটস ক্যাপ্টেন, ‘আমরা অনেক ভালো খেলছিলাম। কিন্তু গেইলের দিনে অন্য কারও করার কিছু থাকে না।’ কাল মাত্র ২২ রানে ভয়ঙ্কর গেইলকে নতুন জীবন দিয়েছেন সাকিব। তারপর সেই গেইলই কিনা ঢাকা ডায়নামাইটসকে ছিন্নভিন্ন করে দিলেন। অথচ কালকের দিনটি ছিল বিশ্বসেরা অলরাউন্ডারের বিশেষ এক দিন। বছর পাঁচেক আগে এই দিনে ম্যাজিক তারিখ ‘১২-১২-১২’-তে উম্মে আহমেদ শিশিরের সঙ্গে গাঁটছড়া বাঁধেন সাকিব। হয়তো ইচ্ছা ছিল বিপিএলের শিরোপা জিতে পঞ্চম ‘বিবাহবার্ষিকী’ উদ্যাপন করবেন। কিন্তু তার পার্টি যে একেবারে পণ্ড হয়ে গেল! কাল স্বপ্নের ফাইনালটি মাঠে বসে উপভোগ করেছেন রংপুর রাইডার্সের স্বত্বাধিকারী শীর্ষ শিল্পপ্রতিষ্ঠান বসুন্ধরা গ্রুপের চেয়ারম্যান আহমেদ আকবর সোবহান। গ্রুপের ভাইস চেয়ারম্যান ও রংপুর রাইডার্সের ব্যবস্থাপনা পরিচালক সাফওয়ান সোবহান তো ছিলেনই। শুধু ফাইনাল নয়, রংপুর রাইডার্সের প্রতিটি ম্যাচেই তিনি মাঠের বাইরে থেকে ক্রিকেটারদের অনুপ্রেরণা দিয়েছেন।

Copyright © 2020 Sayem Sobhan Anvir. All Rights Reserved.