Pre-loader logo

ডিএসই সূচকে যুক্ত হলো বসুন্ধরা পেপার

ডিএসই সূচকে যুক্ত হলো বসুন্ধরা পেপার

মূলধন উত্তোলনের পর লেনদেন চালু হওয়ার তিন মাস পর ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসই) প্রধান সূচকে যুক্ত হলো বসুন্ধরা পেপার মিলস। গত ২ জুলাই দেশের দুই স্টক এক্সচেঞ্জে বসুন্ধরা পেপারের শেয়ার লেনদেন শুরু হয়। তিন মাসে কম্পানিটির লেনদেনযোগ্য শেয়ারের বাজার মূল্য ও গড় লেনদেন বিবেচনায় সূচক সমন্বয়ে কম্পানিটিকে যুক্ত করা হয়েছে।
গতকাল সোমবার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ থেকে পাঠানো এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এই তথ্য জানানো হয়। এতে বলা হয়, এস অ্যান্ড পি ডো জোনস ইনডিসেস মাপকাঠি অনুযায়ী ডিএসইর সূচক কমিটি বসুন্ধরা পেপার মিলসকে ডিএসই ব্রড ইনডেক্সে যুক্ত হওয়ার যোগ্য বলে ঘোষণা দিয়েছে, যা আগামী ২১ অক্টোবর থেকে কার্যকর হবে।
জানা যায়, বসুন্ধরা পেপার মিলস পুঁজিবাজারে শেয়ার ছেড়ে ২০০ কোটি টাকা মূলধন উত্তোলন করছে। উত্তোলিত অর্থ দিয়ে কারখানার আধুনিকীকরণ ও মেশিনারিজ আমদানি করবে। কম্পানি সূত্র জানায়, দেশের কাগজ খাতে একচেটিয়া আধিপত্য রয়েছে বসুন্ধরা পেপার মিলসের।
তিনটি ইউনিটের মাধ্যমে কম্পানিটি পেপার ও পেপারসামগ্রী উৎপাদন করে দেশীয় চাহিদা মিটিয়ে ২০টির বেশি দেশে রপ্তানি করছে। নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁয় মেঘনাঘাটে ইউনিট-১ ও ইউনিট-২ এবং মুন্সীগঞ্জের গজারিয়ায় ইউনিট-৩ চালু রয়েছে। টিস্যু পণ্যের বাজারের ৮০ শতাংশই বসুন্ধরা পেপার মিলসের।
২০১৭ সালের ২৭ আগস্ট ইলেকট্রনিক সাবস্ক্রিপশনের মাধ্যমে কাট-অব প্রাইস নির্ধারণের অনুমোদন দেয় পুঁজিবাজার নিয়ন্ত্রক সংস্থা বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন। গত ৩০ জানুয়ারি অনুষ্ঠিত কমিশন সভায় বিনিয়োগকারীদের কাছে বসুন্ধরা পেপারের শেয়ার ইস্যুর চূড়ান্ত অনুমোদন পায়। এরপর সব প্রক্রিয়া সম্পন্ন করে ২ জুলাই পুঁজিবাজারে লেনদেন শুরু হয়।

Copyright © 2020 Sayem Sobhan Anvir. All Rights Reserved.