Pre-loader logo

বসুন্ধরার অস্থায়ী হাসপাতাল প্রস্তুত, স্বাস্থ্য অধিদপ্তর চাইলেই হস্তান্তর

বসুন্ধরার অস্থায়ী হাসপাতাল প্রস্তুত, স্বাস্থ্য অধিদপ্তর চাইলেই হস্তান্তর

করোনাভাইরাস (কভিড-১৯) চিকিৎসায় দেশের শীর্ষস্থানীয় শিল্পগোষ্ঠী বসুন্ধরা গ্রুপের ইন্টারন্যাশনাল কনভেনশন সিটি বসুন্ধরা’র (আইসিসিবি) অস্থায়ী হাসপাতাল সেবা প্রদানের জন্য প্রস্তুত হয়ে গেছে। স্বাস্থ্য অধিদপ্তর যেদিন চাইবে সেদিনই তাদের কাছে বুঝিয়ে দেওয়া হবে। অস্থায়ী হাসপাতাল প্রস্তুতি সম্পর্কে কালের কণ্ঠকে এমনটিই জানিয়েছেন আইসিসিবি’র প্রধান পরিচালন কর্মকর্তা এম এম জসীম উদ্দিন।
তিনি জানান, হাসপাতালের সাধারণ বেড স্থাপন, হলের যাবতীয় কর্মকাণ্ড গতকাল রাতেই (মঙ্গলবার) শেষ হয়েছে। এখন স্বাস্থ্য বিভাগ আমাদের কাছে যেদিন চাইবেন আমরা তাদের বুঝিয়ে দেব। তাদের (স্বাস্থ্য অধিদপ্তর) একটি প্রতিনিধি দল গতকাল (মঙ্গলবার) আমাদের সবকিছু দেখে গেছেন। সেটির নেতৃত্বে ছিলেন স্বাস্থ্যসেবা বিভাগের সচিব মো. আসাদুল ইসলাম। তিনি হাসপাতালের সর্বশেষ তথ্য নিয়েছেন। আজকেও (বুধবার) তাদের (স্বাস্থ্য অধিদপ্তর) একটি প্রতিনিধি দল হাসপাতালটি বুঝে নেওয়ার বিষয়টি চূড়ান্ত করতে দেখে গেছেন। এখন তারা যেদিন আমাদের চিঠি দিয়ে জানাবেন ওই দিনই আমরা তাদের কাছে হাসপাতাল বুঝিয়ে দেব।
জসীম উদ্দিন আরো জানান, আইসিইউ রোগীদের কোথায় রাখা হবে সেটি নিয়ে একটু দ্বিধাদ্বন্দ্ব ছিল। সেটিও খোলাসা হয়েছে। অস্থায়ী হাসপাতালের পাশেই আইসিইউ প্রয়োজন এমন রোগীদের জন্য একটি ইউনিট প্রস্তুতির কাছ শুরু হয়ে গেছে। সপ্তাহখানের মধ্যে সেটিও প্রস্তুত হয়ে যাবে।
হাসপাতাল চত্বর ঘুরে দেখা গেছে, চিকিৎসক ও নার্সের চেম্বারগুলোর কাজ শেষ। বেডগুলোতে বেডসিট, ডাস্টবিন, স্যালাইন হ্যাঙ্গারসহ আনুসাঙ্গিক সার্পোট বসানো হয়েছে। টয়লেট নির্মাণও শেষ হয়েছে। হাসপাতালের এসি, চেয়ারসহ অন্যান্য কাজের ফিনিশিংও একেবারে চূড়ান্ত পর্যায়ে।
প্রসঙ্গত, মঙ্গলবার পরিদর্শনে এসে স্বাস্থ্য সচিব মো. আসাদুল ইসলাম সাংবাদিকদের জানান, দেশের দুর্যোগ পরিস্থিতিতে বিশাল সুযোগ সুবিধা দিয়ে এগিয়ে এসে এই সার্পোট দেওয়ার জন্য বসুন্ধরা গ্রুপকে ধন্যবাদ। এখানে অনেক রোগীকে চিকিৎসা দেওয়া যাবে। দ্রুততম শেষ করার স্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদপ্তর দিনরাত কাজ করে যাচ্ছে। এখানে, অন্যান্য সুবিধা ও অক্সিজেনের ব্যবস্থা করা হয়েছে। আমরা আশা করছি এই মাসের শেষেই এখানে চিকিৎসা সেবা শুরু করতে পারবো।
‘দেশ ও মানুষের কল্যাণে’- এই স্লোগানের আলোয় পথচলা বসুন্ধরা গ্রুপ করোনা ভাইরাসের এই দুর্যোগকালেও দেশ ও জাতির কল্যাণে এগিয়ে এসেছে। দেশে কভিড-১৯ আক্রান্ত রোগী বাড়তে থাকায় সম্প্রতি সরকারকে আইসিসিবিতে পাঁচ হাজার শয্যার একটি অস্থায়ী হাসপাতাল প্রতিষ্ঠার প্রস্তাব দেয় দেশের শীর্ষস্থানীয় এই শিল্পগোষ্ঠী। বসুন্ধরা গ্রুপের প্রস্তাবে প্রধানমন্ত্রীর সম্মতির ভিত্তিতে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর ও সেনাবাহিনীর একটি দল পরির্দশন শেষে পরবর্তীতে এটাকে অস্থায়ী হাসপাতাল বা আইসোলেশন স্থাপনের উদ্যোগ নেয়। কভিড-১৯ বিপর্যয় শেষ না হওয়া পর্যন্ত এবং সরকারের যতদিন ব্যবহারের প্রয়োজন শেষ না হবে ততদিন আইসিসিবিকে ব্যবহারের জন্য দেওয়া হয়েছে।

Copyright © 2020 Sayem Sobhan Anvir. All Rights Reserved.