Pre-loader logo

বসুন্ধরার ভোজ্যতেল প্রকল্পের কাজ শুরু

বসুন্ধরার ভোজ্যতেল প্রকল্পের কাজ শুরু

বসুন্ধরা মাল্টি ফুড প্রোডাক্টস লিমিটেডের আওতাধীন ভোজ্যতেল রিফাইনারি প্রকল্পের বাস্তবায়ন শুরু হয়েছে। গতকাল রাজধানীর বসুন্ধরা আবাসিক এলাকার বসুন্ধরা ইন্ডাস্ট্রিয়াল হেডকোয়ার্টার-২-এর সেমিনারকক্ষে কেক কেটে আনুষ্ঠানিকভাবে এ প্রকল্পের উদ্বোধন করেন দেশের শীর্ষ শিল্পোদ্যোক্তা পরিবার বসুন্ধরা গ্রুপের ভাইস চেয়ারম্যান সাফওয়ান সোবহান। বসুন্ধরা গ্রুপের এই ভোজ্যতেল রিফাইনারি ইউনিটের পূর্ণাঙ্গ যাত্রা হলে দৈনিক ২ হাজার টন পাম ও সয়াবিন পরিশোধন করা যাবে। অত্যাধুনিক এই তেল রিফাইনারি মিলটি দেশের ভোক্তাদের চাহিদা অনুযায়ী আন্তর্জাতিক গুণগতমানসম্পন্ন পণ্য বাজারজাত করার লক্ষ্য নিয়ে এগোচ্ছে। এতে কারিগরি সহায়তা করছে বাংলাদেশে ৬০ ভাগ ভোজ্যতেলের জোগানদাতা সিঙ্গাপুরভিত্তিক খ্যাতনামা প্রতিষ্ঠান লিপিকো টেকনোলজি। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন বসুন্ধরা গ্রুপের জ্যেষ্ঠ উপ-ব্যবস্থাপনা পরিচালক মো. বেলায়েত হোসেন, উপ-ব্যবস্থাপনা পরিচালক মো. মুস্তাফিজুর রহমান, বসুন্ধরা গ্রুপের উপদেষ্টা ময়নাল হোসেন চৌধুরী প্রমুখ। ঢাকার অদূরে দক্ষিণ কেরানীগঞ্জের পানগাঁওয়ে বসুন্ধরা ইন্ডাস্ট্রিয়াল পার্কে অবস্থিত বসুন্ধরা মাল্টি ফুড প্রোডাক্টস লিমিটেডের এ ভোজ্যতেল রিফাইনারি ইউনিট প্রকল্পের বিভিন্ন দিক তুলে ধরে বক্তব্য দেন বসুন্ধরা গ্রুপের উপদেষ্টা মেজর জেনারেল মুহাম্মদ মাহবুব হায়দার খান (অব.), বসুন্ধরা গ্রুপের হেড অব ডিভিশন, সেলস অ্যান্ড মার্কেটিং রাশিদুল আহসান ও লিপিকো টেকনোলজির প্রতিনিধি ফখরুল আলম। অনুষ্ঠানে বসুন্ধরা গ্রুপের উপদেষ্টা মেজর জেনারেল মুহাম্মদ মাহবুব হায়দার খান (অব.) জানান, দৈনিক ২ হাজার টন (পাম ও সয়াবিন) পরিশোধন ক্ষমতাসম্পন্ন অত্যাধুনিক এই তেল রিফাইনারি মিলটি দেশের চাহিদা অনুসারে আন্তর্জাতিক গুণগতমানসম্পন্ন পণ্য বাজারজাতের লক্ষ্য নিয়ে এগোচ্ছে। লিপিকো টেকনোলজি প্রকল্পটি বাস্তবায়নে কারিগরি সহায়তা দিচ্ছে। লিপিকো টেকনোলজির প্রতিনিধি ফখরুল আলম বলেন, ভোজ্যতেলের বাজারে বছরে ২০ হাজার কোটি টাকার বিশাল বাজেট নিয়ে আসছে বসুন্ধরা। এটা দেশের জন্য ভালো খবর। তেলের বাজারে বসুন্ধরা ভালো করবে, এ সক্ষমতা তাদের আছে। তিনি বলেন, বাংলাদেশের ৬০ শতাংশ ভোজ্যতেল লিপিকোর মাধ্যমে আসে।

Copyright © 2020 Sayem Sobhan Anvir. All Rights Reserved.