Pre-loader logo

বসুন্ধরায় ‘র‌্যালিক্রস’

বসুন্ধরায় ‘র‌্যালিক্রস’

এতদিন টেলিভিশন পর্দায় দেখা গেছে। এখন চোখের সামনে হচ্ছে। কার রেসিং, ক্রীড়া বিশ্বের সবচেয়ে আকর্ষণীয় ও টানটান উত্তেজনার প্রতিযোগিতা। গতির সঙ্গে পাল্লা দিয়ে চলা কার রেসিং এখন বাংলাদেশের ক্রীড়াঙ্গনেরও অন্যতম জনপ্রিয় খেলা। জনপ্রিয় খেলাটি গতকাল বসুন্ধরা আন্তর্জাতিক কনভেনশন সিটিতে আয়োজন করল বাংলাদেশ মোটর স্পোর্টস। সকালে ‘ঢাকা মোটর শো ২০১৬’ প্রতিযোগিতাটির তৃতীয় আসরের উদ্বোধন করেন ঢাকা সিটি করপোরেশন উত্তরের মেয়র আনিসুল হক। বসুন্ধরা আন্তর্জাতিক কনভেনশন সিটির রাস্তাগুলোতে লাল-নীল-কালো নানান রঙের রেসিং কারগুলো সারি সারি দিয়ে অপেক্ষমাণ। আঁকা-বাঁকা রাস্তাগুলোতে রকেট গতিতে গাড়িগুলো ছুটে চলেছে লক্ষ্যপানে। বৃষ্টিসিক্ত বালির ট্র্যাকে টায়ার আর শক্তিশালী ইঞ্জিনের গর্জন শুনিয়ে কারগুলো ছুটছে চ্যাম্পিয়ন হতে। সময়ের সঙ্গে পাল্লা দিয়ে চলছে শ্রেষ্ঠত্বের তুমুল লড়াই। গাড়িগুলোর ল্যাপ পূরণ করার পথে ট্র্যাক ঘিরে উন্মুক্ত ময়দানে দাঁড়িয়ে আছে হাজার হাজার দর্শক। রেসিং ড্রাইভারদের উৎসাহিত করতে চলছে মুহুর্মুহু করতালি। তৃতীয়বারের মতো আসরটির আয়োজন করে র‌্যালিক্রসের উদ্দেশ্য সম্পর্কে আয়োজক সংস্থা সেমস গ্লোবাল বাংলাদেশের প্রেসিডেন্ট মেহেরুন এন ইসলাম বলেন, ‘ঢাকা বাইক শো’ উপলক্ষে প্রতিবছর মেলার শেষ দিনে আমরা কার রেসিংয়ের আয়োজন করি। এবার আয়োজন করা হলো তৃতীয়বারের মতো। প্রথমবার হয়েছিল বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক কেন্দ্রের পাশের মাঠে। এ বছর বসুন্ধরা আন্তর্জাতিক কনভেনশন সেন্টারে।’ র‌্যালিক্রসে অংশ নিয়েছে ৩৫টি গাড়ি। অংশগ্রহণকারীদের মধ্যে ছিল নেপালের দুজন। এ ছাড়া মহিলা মোটর চালকও ছিলেন। ঢাকায় র‌্যালিক্রস চ্যাম্পিয়নশিপ শুরু হয়েছে ২০১৪ সালে। কার রেসিংয়ের মধ্যে নতুন মাত্রা যোগ করেছে র‌্যালিক্রস ফরম্যাট। বর্তমানে চারটি ক্যাটাগরিতে সারা বিশ্বে র‌্যালিক্রস চ্যাম্পিয়নশিপ অনুষ্ঠিত হচ্ছে। সুপারকার, সুপার-১৬০০, ট্যুরিং কার এবং আরএক্স লাইটস। প্রতিটা হিট থেকেই রেসিং ড্রাইভাররা পয়েন্ট পেয়ে থাকেন। চার ল্যাপসের প্রতিযোগিতা হয় সাধারণত। তবে সেমিফাইনাল এবং ফাইনালে ছয় ল্যাপসের লড়াই হয়ে থাকে। এর মধ্যে জোকারল্যাপ নামে রয়েছে চ্যালেঞ্জিং রেসও। এতে আগে থেকেই সময় নির্ধারণ করে দেওয়া হয়। নির্ধারিত সময়ের মধ্যে ল্যাপ পূরণ করতে ব্যর্থ হলে ৩০ সেকেন্ডের পেনাল্টি হজম করতে হয় রেসিং ড্রাইভারকে। বেশ কয়েক বছর ধরেই বিশ্বের নানান দেশে র‌্যালিক্রস ধুমধামে অনুষ্ঠিত হচ্ছে।
‘তৃতীয় র‌্যালিক্রস চ্যাম্পিয়নশিপ-২০১৬’ এর গোল্ড স্পন্সর ছিল কর্ণফুলী মোটরস এবং বাংলাদেশ ট্যুরিজম বোর্ড। কো-স্পন্সর বসুন্ধরা গ্রুপ এবং বসুন্ধরা ইন্টারন্যাশনাল কনভেনশন সিটি।

Copyright © 2020 Sayem Sobhan Anvir. All Rights Reserved.