Pre-loader logo

বসুন্ধরা কিংসের কোচ অস্কার ব্রুজোন

বসুন্ধরা কিংসের কোচ অস্কার ব্রুজোন

এদিক-ওদিক অনেক খোঁজাখুঁজির পর বসুন্ধরা কিংস বেছে নিয়েছে অস্কার ব্রুজোনকে। নিউ রেডিয়ান্ট ক্লাবের চোখ-ধাঁধানো সাফল্যের স্মারক নিয়ে এ স্প্যানিশ কোচ আসছেন ঢাকায়। বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগে বসুন্ধরা কিংসের যাত্রা শুরু হবে তাঁর তত্ত্বাবধানেই।
মাত্র পাঁচ মাস আগে তিনি ঢাকা ঘুরে গিয়েছিলেন মালদ্বীপের নিউ রেডিয়ান্ট দল নিয়ে। উপলক্ষ এএফসি কাপ, গত ৭ মার্চ সেই ম্যাচে আবাহনীকে ১-০ গোলে হারিয়ে দেখান নিজের কৃতিত্ব। এর আগে তিন মৌসুম কাজ করেছেন ভারতের দুটো ক্লাবে। সুবাদে দক্ষিণ এশীয় অঞ্চলের ফুটবল তাঁর চেনা, ক্লাব ফুটবলের চরিত্রও জানা। তাই এমন জানাশোনা কোচের দিকেই ঝুঁকেছে বসুন্ধরা কিংস। ‘এ অঞ্চলে তো তিনি কাজ করেছেন, তা ছাড়া আমাদের দেশের ফুটবলারদের ব্যাপারেও তাঁর ধারণা আছে। এমন একজনকেই আমরা চেয়েছি, যিনি খেলোয়াড়দের সামর্থ্য বুঝে দলটাকে গুছিয়ে নেবেন। আশা করি ব্রুজোন সেটা পারবেন’—উয়েফা-প্রো লাইসেন্সধারী স্প্যানিশের ওপর পুরো আস্থা রাখছেন বসুন্ধরা কিংসের চেয়ারম্যান ইমরুল হাসান। একজন ভালো কোচ খুঁজছিলেন তিনি পাঁচ মাস ধরে। নামিদামি কোচের সঙ্গে প্রাথমিক আলাপও হয়েছিল। কিন্তু ঠিকঠাক মেলাতে পারছিলেন না নিজের ভাবনাচিন্তার সঙ্গে। এ অঞ্চলের ফুটবলে কাজ করার অভিজ্ঞতা এবং সাফল্য দুটোই ছিল তাঁর চাওয়া। শেষ পর্যন্ত ইমরুল হাসান দুটোই একসঙ্গে খুঁজে পেয়েছেন ব্রুজোনের মধ্যে, ‘গত মৌসুমে তিনি মালদ্বীপে খুব ভালো করেছেন। নিউ রেডিয়ান্ট মাঠে খেলেছে ভালো, সে অনুযায়ী সাফল্যও পেয়েছে। সুতরাং টেকটিক্যাল জায়গাগুলোতে তিনি বেশ দক্ষ। তাঁর কোচিং মেধা ও দক্ষতা দিয়ে আমাদের দলটাকে ভালো একটা জায়গায় নিয়ে তুলবেন, এটাই প্রত্যাশা তাঁর কাছে।’
স্পেনের দ্বিতীয় বিভাগে ক্যারিয়ার শুরু করা এই কোচ ২০১২ সালের ডিসেম্বরে আসেন ভারতে। ভারতে কাজ করা প্রথম স্প্যানিশ কোচ তিনি। স্পোর্টিং ক্লাব ডি গোয়ায় দায়িত্ব নিয়ে দুই বছরে জিতেছেন দুটো ফেডারেশন কাপ। ২০১৫ সালে আই লিগ ছেড়ে যান ইন্ডিয়ান সুপার লিগে, মুম্বাই সিটি এফসিতে নিকোলাস অ্যানেলকার সহকারী হয়ে। ২০১৭ সালে মালদ্বীপে যাওয়ার পর থেকেই তাঁর ক্যারিয়ার ঘুরতে শুরু করে। নিউ রেডিয়ান্টের হেড কোচ হয়ে নিজেকে মেলে ধরেন ব্রুজোন। জুনে যোগ দিয়ে ওই বছরই জেতেন প্রিমিয়ার লিগ, এফএ কাপ ও প্রেসিডেন্ট কাপ। এ বছর জেতেন চ্যারিটি শিল্ড সুপার কাপ এবং এএফসি কাপের গ্রুপ পর্ব পেরিয়ে রেডিয়ান্টকে তুলে নেন ফাইনাল প্লে-অফে। মালদ্বীপের সেরা কোচের পুরস্কারও জিতেছেন ৪১ বছর বয়সী এ স্প্যানিশ। গত মৌসুমে তাঁর অধীন ৪৩ ম্যাচ খেলে রেডিয়ান্ট জিতেছে ৩৫টি, ড্র আর হার চারটি করে। সাফল্যের সরণিতে এগিয়ে চলা কোচের ওপর তাই জোর আস্থা বসুন্ধরা কিংসের চেয়ারম্যান, ‘মালদ্বীপে তিনি অসম্ভব ভালো করেছেন। এটাই আমাকে বেশি উৎসাহিত করেছে।’
নতুন চাকরিতে যোগ দিতে ১ সেপ্টেম্বর ঢাকা এসে পৌঁছবেন এই কোচ। এর আগে ২৭ আগস্ট দলের খেলোয়াড়দের রিপোর্ট করতে বলা হয়েছে। নতুন কোচ এসেই যেন ট্রেনিং শুরু করতে পারেন। প্রিমিয়ারে অভিষেকেই চমকে দিতে চায় নবাগত ক্লাবটি। ঠিক একই স্বপ্ন নিয়ে আসছেন অস্কার ব্রুজোনও।

Copyright © 2020 Sayem Sobhan Anvir. All Rights Reserved.