Pre-loader logo

বসুন্ধরা কিংসের শীর্ষস্থান সুদৃঢ়

বসুন্ধরা কিংসের শীর্ষস্থান সুদৃঢ়

শেষ মুহূর্তের গোলে কিছুটা নাটকীয় রূপ নিয়েছিল ম্যাচটি। তাতে অবশ্য ম্যাচের ফলের কোনো পরিবর্তন হয়নি। বসুন্ধরা কিংস ৩-২ গোলে রহমতগঞ্জকে হারিয়ে ম্যাচ জিতে শীর্ষস্থান সুদৃঢ় করেছে। গত ফেব্রুয়ারিতে বিজেএমসির সঙ্গে ড্রয়ের পর লিগে এ নিয়ে টানা ১১ ম্যাচ জেতা বসুন্ধরা ১৭ ম্যাচে ১৬ জয় ও এক ড্রয়ে ৪৯ পয়েন্ট নিয়ে শীর্ষে রয়েছে। ৪২ পয়েন্ট নিয়ে দ্বিতীয় স্থানে রয়েছে শিরোপাধারী আবাহনী লিমিটেড।
লিগের প্রথম পর্বে ১-০ গোলে জিতেছিল বসুন্ধরা কিংস। সেটি যেমন কঠিন ছিল তেমনি এই ফিরতি ম্যাচ জিততে বেগ পেতে হয়েছে। দশম মিনিটের সুযোগ কাজে লাগিয়ে এগিয়ে যায় আগের ম্যাচে মুক্তিযোদ্ধা সংসদ ক্রীড়া চক্রকে উড়িয়ে দিয়ে আসা বসুন্ধরা। মার্কোস দি সিলভার থ্রু পাস ধরে আগুয়ান গোলরক্ষকের মাথার ওপর দিয়ে নিখুঁত চিপ শটে জাল খুঁজে নেন কোস্টারিকার ফরোয়ার্ড দেনিয়েল কলিনদ্রেস সোলেরা। টানা তিন হার নিয়ে খেলতে নামা রহমতগঞ্জ ঘুরে দাঁড়ানোর সুযোগ কাজে লাগাতে পারছিল না। বেশ কিছু সুযোগ তারা হাতছাড়া করে। ১৬তম মিনিটে দলটির গাম্বিয়ান ফরোয়ার্ড ল্যান্ডিং দারবোয়ের শট ঝাঁপিয়ে পড়ে ফেরান গোলরক্ষক আনিসুর রহমান জিকো। চার মিনিট পর রাকিবুল ইসলাম লক্ষ্যভ্রষ্ট শটে হতাশা আরো বাড়ান। ২৫তম মিনিটে সোলেরার বাড়ানো বল ধরে দুই ডিফেন্ডারকে বোকা বানিয়ে ব্যবধান দ্বিগুণ করেন মতিন মিয়া। দশ মিনিট পর এই ফরোয়ার্ডের আরেকটি প্রচেষ্টা পোস্ট ঘেঁষে বেরিয়ে যায়। প্রথমার্ধের শেষ দিকে ম্যাচে ফেরে রহমতগঞ্জ। দারবোয়ের পাস ধরে কোনাকুনি শটে স্কোরলাইন ২-১ করেন রাকিবুল। তখন কিংসকে আরো বেশি চাপে ফেলার চেষ্টা করে রহমতগঞ্জ। কিন্তু ইনজুরি টাইমে গোলের নাটকে খেলা জমা ওঠে আরেক দফা। বদলি হয়ে নামা কিংসের সবুজের গোলে ব্যবধান বড় করলেও আবার পরের মিনিটে বসুন্ধরা হজম করে আরেক গোল। সেটি করেছেন রহমতগঞ্জের ল্যান্ডিং দারবোয়ে পেনাল্টি থেকে। এই জয়ের পর কিংসের টেকনিক্যাল ডিরেক্টর যোবায়ের নিপু যেন হাঁফ ছেড়ে বাঁচলেন, ‘ম্যাচটি ভালো হয়েছে, আমরা গোলের সুযোগ নষ্ট করেছি। এখন আমাদের লক্ষ্য সামনের ম্যাচগুলো থেকে পূর্ণ পয়েন্ট নিয়ে শেষ পর্যন্ত শীর্ষস্থান ধরে রাখা এবং এই সামর্থ্য আমাদের দলের খুব ভালোভাবেই আছে।’

Copyright © 2020 Sayem Sobhan Anvir. All Rights Reserved.