Pre-loader logo

বসুন্ধরা কিংসের সঙ্গী কে

বসুন্ধরা কিংসের সঙ্গী কে

আবেদনের তালিকায় রয়েছে বসুন্ধরা কিংস, ঢাকা আবাহনী, শেখ জামাল, ঢাকা মোহামেডান, সাইফ স্পোর্টিং, শেখ রাসেল, রহমতগঞ্জ, ব্রাদার্স ইউনিয়ন ও উত্তর বারিধারা

পেশাদার লিগ বন্ধের পর প্রশ্ন ছিল ২০২১ সালে এএফসি কাপে বাংলাদেশের কোন দল খেলবে? নিয়ম অনুযায়ী লিগ চ্যাম্পিয়ন ও রানার্স আপ দলই এএফসি কাপে অংশ নেয়। ২০১৯ সালে চ্যাম্পিয়ন দল বসুন্ধরা কিংস এবারের এএফসি কাপে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছে। গ্রুপ পর্বে একটি ম্যাচও খেলে ফেলেছে তারা। অন্যদিকে গতবারের রানার্স আপ ঢাকা-আবাহনী প্লে-অফ ম্যাচ থেকে বিদায় নিয়েছে। এখন জটিলতা তৈরি হয়েছে সামনের এএফসি কাপ নিয়ে। যেহেতু লিগ হয়নি তাই বাফুফে ১৩টি দলকে আবেদন করার সুযোগ দিয়েছে। গত বুধবার ছিল আবেদনের শেষ সময়। পেশাদার লিগের ৯ ক্লাব এএফসি কাপ খেলতে বাফুফের কাছে আবেদন করেছে। বসুন্ধরা কিংস, ঢাকা আবাহনী, শেখ জামাল, ঢাকা মোহামেডান, সাইফ স্পোর্টিং, শেখ রাসেল, রহমতগঞ্জ, ব্রাদার্স ইউনিয়ন ও উত্তর বারিধারা আবেদনের তালিকায় রয়েছে। তবে কিংস যে ২০২১ সালে এএফসি কাপ খেলবে তা নিশ্চিতই বলা যায়। লিগ না হলেও তারা ফেডারেশন কাপে চ্যাম্পিয়ন হয়েছে। আসরে রানার্স আপ দল রহমতগঞ্জের সুযোগ পাওয়ার কথা। সমস্যা হচ্ছে তাদের এশিয়ান ফুটবল কনফেডারেশনের (এএফসি) লাইসেন্স নেই। শুধু রহমতগঞ্জ কেন আবেদন করা দলের আরও কয়েকটি ক্লাবের লাইসেন্স নেই। তারা এএফসি লাইসেন্সের জন্য আবেদনও করেছে। বাফুফে বলছে লাইসেন্স পেলেই কেউ যে টুর্নামেন্ট খেলার নিশ্চয়তা পাবে তা নিশ্চিত নয়। এএফসি দেখবে দলটি যোগ্যতা বা খেলার সামর্থ্য রাখে কি না।

এএফসি লাইসেন্সধারী ফেডারেশন কাপ চ্যাম্পিয়ন হিসেবে কিংস ২০২১ সালে এএফসি কাপ খেলবে। এখন ঢাকা আবাহনী, শেখ জামাল, শেখ রাসেল ও সাইফেরও লাইসেন্স আছে। এদের আবার এ টুর্নামেন্ট খেলার অভিজ্ঞতা রয়েছে। কথা হচ্ছে দ্বিতীয় দল হিসেবে সুযোগ পাবে কে? এক্ষেত্রে আবাহনী বা শেখ জামালেরই সম্ভাবনা বেশি। এরা একাধিক বার টুর্নামেন্টে অংশ নিয়েছে। তা ছাড়া এবার বন্ধ হওয়া লিগে দুটি দলেরই অবস্থান ছিল ভালো। মোহামেডান ঐতিহ্যবাহী দল হলেও তারা এখনো লাইসেন্সধারী নয়। ংদ্বিতীয় দল বাছাই করতে বাফুফে যে জটিলতায় পড়বে এ নিয়ে সংশয় নেই।

Copyright © 2020 Sayem Sobhan Anvir. All Rights Reserved.