Pre-loader logo

মিরসরাই অর্থনৈতিক অঞ্চলে কাজ পাচ্ছে ইস্ট ওয়েস্ট গ্রুপ

মিরসরাই অর্থনৈতিক অঞ্চলে কাজ পাচ্ছে ইস্ট ওয়েস্ট গ্রুপ

দেশের সর্ববৃহৎ অর্থনৈতিক অঞ্চল চট্টগ্রামের মিরসরাইয়ে ৫৫০ একর জমির অবকাঠামো উন্নয়নের কাজ পেতে যাচ্ছে দেশের অন্যতম বৃহৎ শিল্পপ্রতিষ্ঠান ইস্ট ওয়েস্ট গ্রুপ। শিল্পপ্রতিষ্ঠানটি যৌথভাবে পাওয়ারপ্যাক ও গ্যাসমিনকে সঙ্গে করে অর্থনৈতিক অঞ্চলের অবকাঠামো উন্নয়ন করবে। মিরসরাইয়ে ৫৫০ একর জমিতে কাজ করতে ছয়টি শিল্পপ্রতিষ্ঠান দরপত্রে অংশ নেয়। এর মধ্য থেকে সর্বনিম্ন দরদাতা হিসেবে ইস্ট ওয়েস্ট, পাওয়ারপ্যাক ও গ্যাসমিনকে নির্বাচিত করে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের অধীন বাংলাদেশ অর্থনৈতিক অঞ্চল কর্তৃপক্ষ (বেজা)। আজ মঙ্গলবার রাজধানীর সোনারগাঁও হোটেলে আনুষ্ঠানিকভাবে তিনটি প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তাদের হাতে লেটার অব অ্যাওয়ার্ড বা (এলওএ) তুলে দেওয়ার কথা রয়েছে।
বেজার কর্মকর্তাদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, আগামী ১৫ বছরে দেশের বিভিন্ন জেলায় ১০০টি অর্থনৈতিক অঞ্চল প্রতিষ্ঠা করার পরিকল্পনা রয়েছে তাদের। এর মধ্যে সর্বোচ্চ গুরুত্ব দেওয়া হচ্ছে মিরসরাই অর্থনৈতিক অঞ্চলকে। যোগাযোগব্যবস্থা ভালো হওয়ায় এবং পাশে চট্টগ্রাম বন্দর থাকায় অনেক দেশি-বিদেশি শিল্পপ্রতিষ্ঠান সেখানে বিনিয়োগে আগ্রহ দেখিয়েছে। এরই মধ্যে মিরসরাইয়ে ১০ হাজার একরের মতো জমি অধিগ্রহণের কাজ করেছে বেজা। প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের অধীন সংস্থাটির কর্মকর্তারা আরো জানিয়েছেন, প্রাথমিকভাবে ৫৫০ একর জমিকে ঘিরে তাদের পরিকল্পনা। তিনটি শিল্পপ্রতিষ্ঠানের কাছে ৫০ বছরের জন্য ৫৫০ একর জমি লিজ দিচ্ছে বেজা।
জানতে চাইলে বেজার নির্বাহী চেয়ারম্যান পবন চৌধুরী কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘মিরসরাই অর্থনৈতিক অঞ্চলে ৫৫০ একর জমিতে বিভিন্ন উন্নয়নমূলক কাজ করতে আমরা যৌথভাবে তিনটি প্রতিষ্ঠানকে কাজ দিচ্ছি। এখন তাদেরকে লেটার অব অ্যাওয়ার্ড দেওয়া হচ্ছে। পরে তারা সেখানে কী কী করতে চায়, সে বিষয়ে পরিকল্পনা জমা দেবে। চূড়ান্ত চুক্তি হবে আরো পরে।’
বেজা সূত্র বলছে, নির্বাচিত তিনটি প্রতিষ্ঠান ৫৫০ একর জমিতে শিল্প-কারখানা গড়ে তুলতে যত কিছু লাগে, সব কিছুই করবে। শিল্প-কারখনায় বিদ্যুৎ, গ্যাস, পানি সংযোগ, অভ্যন্তরীণ রাস্তা নির্মাণসহ সব ধরনের সেবার ব্যবস্থা করবে তারা। নির্বাচিত ডেভেলপররা চাইলে নিজেরাও সেখানে কারখানা করতে পারে। কিংবা অন্য কোনো শিল্পপ্রতিষ্ঠানের কাছে প্লট বিক্রি করতে পারবে। জমি ব্যবহারের জন্য প্রতিবছর বেজাকে নির্দিষ্ট হারে ফি দিতে হবে। নির্বাচিত তিনটি শিল্পপ্রতিষ্ঠান এককালীন ৪০ কোটি টাকা দেবে বেজাকে।
বেজা সূত্র জানায়, ইস্ট ওয়েস্ট, পাওয়ারপ্যাক ও গ্যাসমিনকে অ্যাওয়ার্ড দেওয়ার পর তারা ৫৫০ একর জমিতে কী করতে চায়, সে বিষয়ে বিস্তারিত প্রতিবেদন জমা দিতে হবে। সেখানে কী পরিমাণ অর্থ বিনিয়োগ হবে, শিল্প-কারখানার নকশা, নির্মাণসহ সব ধরনের সেবা সংক্রান্ত বিষয় প্রতিবেদনে থাকতে হবে।

Copyright © 2020 Sayem Sobhan Anvir. All Rights Reserved.