Pre-loader logo

সুবিধাবঞ্চিতদের জন্য শুরু হচ্ছে ‘বসুন্ধরা তারকাদের রান্নাঘর’

সুবিধাবঞ্চিতদের জন্য শুরু হচ্ছে ‘বসুন্ধরা তারকাদের রান্নাঘর’

রমজান মাসজুড়ে সুবিধাবঞ্চিত মানুষদের পাশে থাকবে দেশের শীর্ষস্থানীয় শিল্প গ্রুপ বসুন্ধরা। এ লক্ষ্যে বসুন্ধরার তিনটি সহযোগী প্রতিষ্ঠানের পৃষ্ঠপোষকতায় এটিএন বাংলায় সুবিধাবঞ্চিত মানুষদের জন্য শুরু হচ্ছে ‘বসুন্ধরা তারকাদের রান্নাঘর’ শীর্ষক একটি রান্না অনুষ্ঠান।
এ অনুষ্ঠানের বিশেষত্ব হচ্ছে, এখানে রান্না করা খাবার রাজধানীর বিভিন্ন অনাথ, এতিম, বৃদ্ধাশ্রম এবং প্রতিবন্ধীদের মধ্যে পরিবেশন করা হবে। অনুষ্ঠানে করা রান্নাগুলোও হবে তাদের পছন্দ অনুযায়ী। পুরো রমজান মাসই প্রচারিত হবে এই অনুষ্ঠান। অনুষ্ঠানটিতে অংশগ্রহণ করবেন সংসদ সদস্য এবং জনপ্রিয় শিল্পী মমতাজ বেগম, চিত্রনায়িকা মৌসুমী। উপস্থাপনা করবেন জান্নাতুল পিয়া, পরিকল্পনা ও পরিচালনায় থাকবেন অনন্যা রুমা। গতকাল বুধাবর রাজধানীর বসুন্ধরা আবাসিক এলাকায় বসুন্ধরা ইন্ডাস্ট্রিয়াল হেডকোয়ার্টার-২ আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এসব তথ্য জানান আয়োজকরা।
মমতাজ বেগম বলেন, “অনুষ্ঠানটি ‘তারকাদের রান্নাঘর’ নাম দিলেও আমি মনে করি বসুন্ধরা গ্রুপ সামাজিক দায়িত্ববোধ থেকেই পবিত্র রমজানে কম ভাগ্যবানদের পাশে দাঁড়িয়েছে। প্রতিষ্ঠানের ব্র্যান্ডিংয়ের জন্য এমন একটি অনুষ্ঠান করতে হবে বলে আমি মনে করি না। কেননা এরই মধ্যে বসুন্ধরা দেশ ও মানুষের কল্যাণে কাজ করে তাদের মনে জায়গা করে নিয়েছে। একটি নাম রাখতে হয়, তাই এটি রাখা হয়েছে।” চিত্রনায়িকা মৌসুমী বলেন, ‘বসুন্ধরা সুবিধাবঞ্চিত মানুষদের জন্য এমন অনুষ্ঠানের পৃষ্ঠপোষকতা করায় আমি অনেক বেশি কৃতজ্ঞ। আশা করি, অনুষ্ঠানটি দেশের গতানুগতিক ধারাবাহিতকা থেকে বের হয়ে ভিন্নতা দেবে।’
বসুন্ধরা গ্রুপের হেড অব বিজনেস ডেভেলপমেন্ট (সেক্টর এ) জেড এম আহমেদ প্রিন্স বলেন, ‘একটি রান্নার অনুষ্ঠানের মাধ্যমে দেশের অবহেলিত মানুষের পাশে দাঁড়ানোর যে ব্যতিক্রমী উদ্যোগ বসুন্ধরা নিয়েছে, এটি একটি নতুন মাইলফলক। আমার বিশ্বাস, অনুষ্ঠানটির ভিন্নতা এবং পরিকল্পনা দেশের মানুষের হৃদয়ে নতুন করে স্থান করে নেবে।’
বসুন্ধরা এলপি গ্যাসের হেড অব মার্কেটিং অ্যান্ড সেলস মীর টি আই ফারুক রিজভী বলেন, সামাজিক দায়বদ্ধতার অংশ হিসেবে বসুন্ধরা গ্রুপের এই রান্নার অনুষ্ঠান সেলিব্রিটিদেরও এতিম এবং প্রতিবন্ধী মানুষের কাছে নিয়ে যাবে। এর ফলে এসব সুবিধাবঞ্চিত মানুষের মনে আনন্দময় অনুভূতি তৈরি হবে। কারণ এদের পাশে দেশের বিত্তবানরা একেবারে যায় না বললেই চলে।
বসুন্ধরা পেপার মিলসের এক্সিকিউটিভ ডিরেক্টর (সেলস) মাসুদুজ্জামান বলেন, ‘ব্যবসা মানুষের জন্য। তাদের ছাড়া ব্যবসা হবে না। তাই সামাজিক দায়বদ্ধতার পাশাপাশি মানুষের জন্য কিছু করা বসুন্ধরার একটি আদর্শ। আমি মনে করি, এ অনুষ্ঠান বিনোদন, সামাজিক দায়বদ্ধতা এবং স্বাস্থ্যবিষয়ক সচেতনতা তৈরিতে ভূমিকা রাখবে।’
সংবাদ সম্মেলনে অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন বসুন্ধরা পেপার মিলস লিমিটেডের এক্সিকিউটিভ ডিরেক্টর (অ্যাকাউন্টস অ্যান্ড ফিন্যান্স) মির্জা মুজাহিদুল ইসলাম, বসুন্ধরা পেপার মিলসের জিএম (মার্কেটিং) তৌফিক হাসান প্রমুখ।

Copyright © 2020 Sayem Sobhan Anvir. All Rights Reserved.