Pre-loader logo

স্বপ্নের ফাইনালে রংপুর রাইডার্স

স্বপ্নের ফাইনালে রংপুর রাইডার্স

জনসন চার্লসের ব্যাটিংকে যদি সাইক্লোনের সঙ্গে তুলনা করা হয়, ব্রেন্ডন ম্যাককালামের ব্যাটিং নিশ্চয়ই টর্নেডো! একজন ৬৩ বলে করলেন অপরাজিত ১০৫ রান, আরেকজন ৪৬ বলে ৭৮! আর এই সাইক্লোন ও টর্নেডো ইনিংসে ভর করেই বিপিএলের স্বপ্নের ফাইনালে উঠে গেল রংপুর রাইডার্স। ৩৬ রানে হেরে টুর্নামেন্ট থেকে বিদায় নিল কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স। আজ ফাইনালে রংপুরের প্রতিপক্ষ ঢাকা ডায়নামাইটস। আগের ৫ ম্যাচে জনসন চার্লসের রানের যোগফল মাত্র ৩৮! ক্যারিবীয় তারকা সুবিধা করতে না পারায় তাকে বসিয়েও রেখেছিলেন কোচ টম মুডি। ওপেনিং থেকে ব্যাটিং অর্ডারে নিচের দিকেও নামিয়ে দেওয়া হয়েছিল তাকে। কিন্তু কাজ হচ্ছিল না। সেই চার্লসই কিনা গতকাল অপরাজিত সেঞ্চুরি করে ফেললেন। ক্রিস গেইলের পর এবারের বিপিএলে দ্বিতীয় সেঞ্চুরি করলেন তারই সতীর্থ চার্লস। সাত-সাতটি বিশাল ছক্কার সঙ্গে ৯টি অসাধারণ চার। টি-২০-তে চার্লসের ক্যারিয়ার সেরা ইনিংস এটি। সংক্ষিপ্ত ফরম্যাটের ক্রিকেটে এর আগে আর কোনো শতক নেই ক্যারিবীয় তারকার। চার্লস আগের দিন অপরাজিত ছিলেন ৪৬ রানে। কাল ৩৪ বলে হাফ সেঞ্চুরি পূরণ করেন। সেঞ্চুরি করেন ৬২ বলে। কুমিল্লার ব্যাটসম্যানদের ওপর স্টিমরোলার চালিয়েছেন কিউই তারকা ব্রেন্ডন ম্যাককালাম। ৪৬ বলে খেলেছেন ৭৮ রানের সাইক্লোন ইনিংস। বাউন্ডারি মাত্র একটি, অথচ ম্যাককালাম কাল ছক্কা হাঁকিয়েছেন ৯টি। টি-২০-এর দানবীয় এই ব্যাটসম্যান অনেক ধৈর্য্য ধরেছেন। একের পর এক ম্যাচে ব্যর্থ হয়েছেন। তারপরও তাকে একাদশে রেখেছেন রংপুর টিম ম্যানেজমেন্ট। রান না পাওয়ায় ম্যাককালামও ক্ষোভের আগুনে জ্বলছিলেন। কাল যেন সব ক্ষোভ ঝাড়লেন কুমিল্লার বোলারদের ওপর। বার বার বল আছড়ে ফেললেন গ্যালারিতে। আগের দিন পায়ে আঘাত পেয়ে ৩ রানেই আউট হয়ে যান ক্রিস গেইল। তারপর রংপুর ৭ ওভারে ৫৫ রান করার পর বৃষ্টি বাধায় খেলা হয়নি। অনেক নাটকের পর খেলা পরের দিন নিয়ে আসা হয়। তবে কুমিল্লার শর্ত মেনে আগের দিন যেখানে শেষ হয়েছিল সেখান থেকেই গতকাল খেলা শুরু হয়। নতুন করে ম্যাচ শুরু না করার পেছনে প্রধান কারণ— যাতে গেইল ব্যাটিং করার সুযোগ না পান। কিন্তু কুমিল্লার সেই আশায় গুড়েবালি। অফ-ফর্মে থাকা রংপুরের দুই ব্যাটসম্যান চার্লস-ম্যাককালামই ভিক্টোরিয়ান্সকে ছিন্নভিন্ন করে দেন। তাদের ১৫১ রানের জুটিই রংপুরকে ১৯২ রানের পাহাড়ে তুলে দেয়। তারপর ভিক্টোরিয়ান্সকে ১৫৬ রানে আটকে দেন মাশরাফিরা। মধুর এক জয়। কালকের ম্যাচে চার্লস ও ম্যাককালামকে সরিয়ে কেন্দ্রীয় ‘চরিত্র’ হয়ে যেতে পারতেন মাঠের দুই আম্পায়ার! জনসন চার্লসের মারে বল লং অফ দিয়ে উড়ে গিয়ে সরাসরি স্পর্শ করে সীমানা রশি-ছক্কা! পরিষ্কার দেখা গেলেও মাঠের আম্পায়ার মিনিট কয়েক থার্ড আম্পায়ারের সঙ্গে আলোচনা করে জানিয়ে দিলেন ৪ হয়েছে। এমন সিদ্ধান্তে চারদিকে বিস্ময়। কিন্তু একটু পরে ঠিকই আম্পায়ার দুই হাত উঁচিয়ে জানিয়ে দিলেন-ছক্কা! আম্পায়ারের সৌজন্যে একবার করে নতুন জীবন পান কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্সের দুই ওপেনার তামিম ইকবাল ও লিটন কুমার দাস।
রুবেল হোসেনের বল মিডল স্ট্যাম্প বরাবর গিয়ে আঘাত করে ভিক্টোরিয়ান্স দলপতির পায়ে। সোহাগ গাজীর বলে আউট হয়ে যেতে পারতেন লিটন। কিন্তু মাঠের আম্পায়াররা যেন প্রতিজ্ঞাবদ্ধ ছিলেন তারা কুমিল্লার ব্যাটসম্যানদের বিরুদ্ধে লেগ-বিফোরের সিদ্ধান্ত দেবেন না! ১২ রানে নতুন জীবন পেয়ে তামিম করেন ৩৬! লিটন ১৭ রানে সুযোগ পেয়ে করেছেন ৩৯ রান। নতুন জীবন পাওয়ার পর দুই ব্যাটসম্যান কুমিল্লার দলীয় স্কোরে বাড়তি ৪৬ রান যোগ করেন। তারপরও হেরে যায় ভিক্টোরিয়ান্স। শেষ পর্যন্ত সত্যের জয় হয়েছে। আম্পায়ারদের ‘বিমাতাসুলভ’ আচরণের পরও দাপট দেখিয়ে ফাইনালে উঠে গেছে রংপুর রাইডার্স। আজ তাদের প্রতিপক্ষ ঢাকা ডায়নামাইটস।

Copyright © 2020 Sayem Sobhan Anvir. All Rights Reserved.