Pre-loader logo

৪০টি পরীক্ষার পর বাজারজাত করা হয় বসুন্ধরা এলপি গ্যাস

৪০টি পরীক্ষার পর বাজারজাত করা হয় বসুন্ধরা এলপি গ্যাস

বাজারে একমাত্র বসুন্ধরা গ্রুপের এলপি গ্যাসই নিরাপদ ও ঝুঁকিমুক্ত এবং পরিবেশ ও গ্রাহকবান্ধব। বসুন্ধরার এলপি গ্যাস নিরাপদ রাখার জন্য ল্যাবরেটরিতে ৪০ ধরনের পরীক্ষার পর বাজারজাত করা হয়। এতে দুর্ঘটনার কোনো আশঙ্কা থাকে না। কিছু কিছু কম্পানি এলপি গ্যাস বাজারে নিয়ে এসেছে, তবে তা নিরাপদ নয়; খুবই ঝুঁকিপূর্ণ।
গতকাল বুধবার দুপুরে ‘বসুন্ধরা এলপি গ্যাস ডিস্ট্রিবিউটর সম্মেলনে এসব কথা বলেন বসুন্ধরা গ্রুপের উপব্যবস্থাপনা পরিচালক (সিমেন্ট খাত) ইঞ্জিনিয়ার এ কে এম মাহবুব-উজ-জামান। রাজধানীর বসুন্ধরা আবাসিক এলাকায় অবস্থিত বসুন্ধরা কনভেনশন সেন্টার-২-এ এই সম্মেলনের আয়োজন করা হয়। সম্মেলন পরিচালনা করেন বসুন্ধরা এলপি গ্যাস লিমিটেডের জেনারেল ম্যানেজার (জিএম, সেলস) রিজভী ফারুক। সকাল ১০টা থেকে বেলা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে বসুন্ধরা কনভেনশন সেন্টার-২-এ বিভিন্ন জেলা-উপজেলা থেকে আসা প্রায় ৩০০ পরিবেশক ‘বসুন্ধরা এলপি গ্যাস ডিস্ট্রিবিউটর কনফারেন্স-২০১৪’ সম্মেলনে অংশ নেন। এ সময় সম্মেলনকেন্দ্রটি পরিবেশকদের মিলন মেলায় পরিণত হয়।
সম্মেলনে ইঞ্জিনিয়ার এ কে এম মাহবুব-উজ-জামান পরিবেশকদের উদ্দেশে বলেন, ‘যাঁরা দীর্ঘদিন ধরে বসুন্ধরা গ্রুপের সঙ্গে ব্যবসা করছেন, তাঁদের সঙ্গে অতীতের মতোই আমাদের সম্পর্ক আরো সুদৃঢ় হবে। এ ক্ষেত্রে পরিবেশকদের সব ধরনের সমস্যা সমাধানে বসুন্ধরা গ্রুপ ইতিবাচক পদক্ষেপ নেবে।’ পরিবেশকদের জন্য আগামী মে মাসে বসুন্ধরা এলপি গ্যাসের দামে বিশেষ সুবিধা দেওয়ার চিন্তাভাবনা রয়েছে বলে জানান গ্রুপের এ শীর্ষ কর্মকর্তা।
বসুন্ধরা গ্রুপের হেড অব ব্র্যান্ড মো. জসিম উদ্দিন বলেন, ‘বসুন্ধরা গ্রুপ সর্বপ্রথম এলপি গ্যাস বাংলাদেশে নিয়ে এসেছে। কয়েক মাসে আমরা ব্যাপক বিশ্লেষণ করেছি। বসুন্ধরা এলপি গ্যাস খুবই নিরাপদ ও মান নিয়ন্ত্রিত। শিগগিরই আমরা ডিস্ট্রিবিউটর ও ডিলারদের প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা করব। জিনিস ভালো হলে তার দাম একটু বেশি হবে, এটাই স্বাভাবিক।’
বসুন্ধরা গ্রুপের হেড অব অ্যাকাউন্ট অ্যান্ড ফিন্যান্স তোফায়েল হোসেন পরিবেশকদের উদ্দেশে বলেন, ‘আপনারা আমাদের সঙ্গে অনেক দিন ধরে আছেন। আপনাদের সব কথা উচ্চ পর্যায়ে আলোচনা করা হবে। গ্রাহকদের কাছে দ্রুত এলপি গ্যাস পৌঁছে দিতে কম্পানি কয়েকটি পদক্ষেপ নিয়েছে।’
অনুষ্ঠানে পরিবেশকরা ব্যবসা ও গ্রাহকদের সুযোগ-সুবিধার কথা তুলে ধরেন। এ সময় পটুয়াখালী থেকে আসা পরিবেশক রনি এন্টারপ্রাইজের মালিক বজলুর রহমান বলেন, ‘এককালে আমি চাকরি করতাম। চাকরি থেকে অবসর নেওয়ার পর আমি নিজেকে সৌভাগ্যবান মনে করি এ জন্য যে বসুন্ধরা গ্রুপের একটি প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে ব্যবসা করতে পেরেছি। গোপালগঞ্জের মাহি আলম এন্টারপ্রাইজের মালিক মাহি আলম বলেন, কিছু মানহীন কম্পানি কম দামে এলপি গ্যাস বাজারজাত করে থাকে। এতে জীবনের ঝুঁকিও থাকে। তবে সচেতন ক্রেতারা মানসম্মত বসুন্ধরা এলপি গ্যাস ক্রয় করে থাকেন। এ ছাড়া কুমিল্লার উজ্জ্বল দে, বাগেরহাটের এস এম শামিম ও ঢাকার তেজগাঁওয়ের আবু তাহের প্রমুখ বক্তব্য দেন।
পরে বর্তমান বাজারের সঙ্গে তাল মিলিয়ে বসুন্ধরা এলপি গ্যাস সরবরাহ অব্যাহত রাখার প্রতিশ্রুতি দেন এ গ্রুপের শীর্ষ কর্মকর্তারা। এ সময় পরিবেশকরা করতালি দিয়ে বসুন্ধরা গ্রুপকে অভিন্দন জানায়।
সম্মেলনে আকর্ষণীয় মধ্যাহ্ন ভোজের পর মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান উপভোগ করেন পরিবেশকরা। অনুষ্ঠানের একপর্যায়ে র‌্যাফেল ড্র অনুষ্ঠিত হয়। এতে ১০ জন ভাগ্যবান বিজয়ী মূল্যবান পুরস্কার পান। প্রথম বিজয়ীকে একটি এলইডি টিভি, দ্বিতীয়জনকে একটি ডিপ ফ্রিজ ও তৃতীয় বিজয়ীকে একটি মাইক্রো ওভেন দেওয়া হয়।

Copyright © 2021 Sayem Sobhan Anvir. All Rights Reserved.